খুলনা, বাংলাদেশ | ৫ আষাঢ়, ১৪৩১ | ১৯ জুন, ২০২৪

Breaking News

  কক্সবাজারের উখিয়ায় রোহিঙ্গা ক্যাম্পে পাহাড়ধসে ৯ জনের মৃত্যু, নিখোঁজ ৩

ফুলবাড়িগেট রেলক্রসিংয়ে ওভারপাস নির্মাণ প্রকল্প ২৭ মাস ফাইলবন্দী

একরামুল হোসেন লিপু

ভৌগোলিক কারণে বাণিজ্যিক x ব্যস্ততম খুলনা-যশোর জাতীয় মহাসড়কের ফুলবাড়িগেট  এ এলাকার প্রাণকেন্দ্র মহাসড়কের উপর রেল ক্রসসিংয়ের কারণে মহাসড়কটি দিয়ে যাতায়াতকারী চালক, যাত্রী ও পথচারীদের প্রতিনিয়ত দীর্ঘ যানজটের কবলে পড়ে  সীমাহীন দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে। মুমূর্ষু রোগী বহনকারী অ্যাম্বুলেন্স,  গুরুত্বপূর্ণ সরকারি-বেসরকারি সংস্থা ও সেবা প্রদানকারী প্রতিষ্ঠানের জরুরী গাড়িগুলোকেও দীর্ঘক্ষণ আটকে থাকতে হয়। অপচয় হয় মূল্যবান সময় ও জ্বালানি তেলের।
রেলক্রসিংয়ের দায়িত্বপালনকারী এক গেটম্যান জানান,  দিবা-রাত্রি ২৪ ঘন্টায় ৩৭ বার (ক্ষেত্রবিশেষ কমবেশী) ট্রেন আসা যাওয়া করে। প্রতিবার ট্রেন আসা যাওয়ার সময়  কমপক্ষে  ৩-৪ মিনিট রেল ক্রসিংয়ের গেট  বন্ধ রাখা হয়। ব্যস্ততম এই সড়কটির ৩-৪ মিনিট যানবাহন চলাচল বন্ধ থাকার কারণে রেলক্রসিংয়ের দু’ পার্শ্বে মহাসড়কের উপর সৃষ্ট যানজটমুক্ত হতে কমপক্ষে ১০ থেকে ১৫ মিনিট সময় লেগে যায়। মহাসড়কের এ স্থানটি দিয়ে ঝামেলামুক্ত ও দুর্ঘটনা এড়াতে দুই বছরের বেশী সময় ওভারপাস নির্মাণের পরিকল্পনা নেওয়া হলেও তা আলোর মুখ দেখেনি।
খুলনা উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ (কেডিএ) ২০২১ সালের শুরুতে ফুলবাড়িগেট রেলক্রসিং এ ওভারপাস নির্মাণের একটি প্রস্তাবনা তৈরি করে। প্রকল্পের ব্যয় ধরা হয় ৩’শ কোটি টাকা। প্রতিষ্ঠিত কনসালট্যান্ট ফার্ম দিয়ে প্রকল্পের ফিজিবিলিটি স্ট্যাডি করা হয়। কনসালট্যান্ট ফার্মের বিশেষজ্ঞরাও ফুলবাড়িগেট রেল ক্রসিং-এ ওভারপাস নির্মাণের প্রয়োজনীতার স্বপক্ষে তাঁদের মতামত ব্যক্ত করেন। রেল ক্রসিং এর উত্তর, দক্ষিণ ও কুয়েট রোডের  প্রবেশদ্বারের দিকে আধা কিলোমিটার এবং এক কিলোমিটার সাইড উইংসহ মোট দেড় কিলোমিটার জুড়ে  “ওয়াই লুফ” আকৃতির ওভার পাসটি নির্মাণের পরিকল্পনা সংক্রান্ত প্রস্তাবনাটি  গণপূর্ত মন্ত্রণালয়ে পাঠানো হয়। প্রস্তাবনাটি পাঠানোর পর প্রায় ২৭ মাস কেটে গেছে। এখনো আলোর মুখ দেখেনি প্রকল্পটি। ফাইলবন্দি অবস্থায় রয়েছে গণপূর্ত মন্ত্রণালয়ে।
প্রকল্প সংশ্লিষ্টরা জানান,  ওই সময়ে মন্ত্রণালয় থেকে একটি কমিটি গঠন করে দেওয়া হয়। কমিটির সদস্যদের সরজমিনে প্রকল্পের স্থান পরিদর্শন ও ওভারপাস নির্মাণ প্রকল্পের বিষয়াদি নিয়ে কেডিএ কর্তৃপক্ষসহ অন্যান্য প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে বৈঠকের সিদ্ধান্ত হয়। কিন্তু  অজ্ঞাত কারণে গত দুই বছরেও মন্ত্রণালয়  থেকে  ওই কমিটির সদস্যরা প্রকল্প সংশ্লিষ্ট বিষয় নিয়ে খুলনা সফরে  আসেননি।
ফুলবাড়িগেট রেলক্রসিং এ ওভারপাস নির্মাণ  প্রকল্পের পিডি  কেডিএ’র নির্বাহী প্রকৌশলী (পূর্ত) মোঃ আরমান হোসেন খুলনা গেজেটকে বলেন, মন্ত্রণালয় থেকে  কমিটির সদস্যরা পরিদর্শনে আসার পর আমরা প্রকল্পের ডিপিপি পাঠাবো। এরপর মন্ত্রণালয় থেকে অনুমোদন দিলে  আমরা পরবর্তী কার্যক্রম শুরু করবো।
তিনি বলেন, প্রথমাবস্থায় প্রকল্পের ব্যয়  ৩’শ কোটি টাকা  ধরা হলেও এখন প্রকল্পের ব্যয় বৃদ্ধি পেয়ে সাড়ে তিনশ কোটি টাকা হতে পারে।
অন্যদিকে ওভারপাস  নির্মাণ করা হবে  এই  কারণে খুলনা উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ (কেডিএ) মাস্টার প্ল্যানের আওতাভুক্ত ফুলবাড়িগেট   এলাকার কিছু জমির মালিকদের  ভূমি ব্যবহারের ছাড়পত্র (প্লান পাস) দেওয়া বন্ধ রেখেছে । এক যুগেরও বেশি সময় ধরে। মহাসড়কের পাশে বাণিজ্যিক এলাকায় মূল্যবান এসব জমিতে প্লানপাস না পাওয়ায় মারাত্মকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে সংশ্লিষ্ট জমির মালিকরা।
খুলনা গেজেট/কেডি




খুলনা গেজেটের app পেতে ক্লিক করুন

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

© 2020 khulnagazette all rights reserved

Developed By: Khulna IT, 01711903692

Don`t copy text!