খুলনা, বাংলাদেশ | ২৪ অগ্রহায়ণ, ১৪৩০ | ৯ ডিসেম্বর, ২০২৩

Breaking News

  মুন্সীগঞ্জে আবাসিক ভবনে গ্যাস সিলিন্ডার বিস্ফোরণ, নারী-শিশুসহ দগ্ধ ৪, উদ্ধার তৎপরতায় যোগ দিয়েছে ফায়ার সার্ভিস
  মানবাধিকার লঙ্ঘন : ১৩ দেশের ৩৭ জনের ওপর মার্কিন নিষেধাজ্ঞা

‘খুলনা সিটিতে সুন্দর ও সুষ্ঠুভাবে ভোটগ্রহণ’

নিজস্ব প্রতিবেদক

নির্বাচন কমিশনের যুগ্মসচিব মনিরুজ্জামান তালুকদার বলেছেন, খুলনা সিটি কর্পোরেশনের ভোটগ্রহণ চলছে। আমরা যতগুলো কেন্দ্রে ঘুরেছি সবগুলো কেন্দ্রেই সুষ্ঠু ও সুন্দরভাবে ভোটগ্রহণ চলছে। খুলনা কলেজিয়েট স্কুল কেন্দ্রের একটি বুথে ৩১৯ জন ভোটারের মধ্যে প্রায় ১০০ জন ভোট দিয়েছেন। এখন ১২টাও বাজেনি। অর্থাৎ তিন-চার ঘণ্টায় এক-তৃতীয়াংশ ভোট হয়েছে। এ কারণে আমরা ধরে নিতে পারি যে সুষ্ঠু ও সুন্দরভাবে ভোট হচ্ছে। অন্য কোন সমস্যা হচ্ছে না।

সোমবার (১২ জুন) দুপুরে নগরীর ১৭ নম্বর ওয়ার্ডের খুলনা কলেজিয়েট স্কুল কেন্দ্র পরিদর্শন শেষে তিনি এসব কথা বলেন।

ইসির যুগ্মসচিব আরও বলেন, অনেক জায়গায় মেশিনের কিছুটা দেরি হলে এটা কোনো অনাকাঙ্ক্ষিত দেরি না। আমরা আশা করছি নির্ধারিত সময়ে যারা ভোটকেন্দ্রে এসেছে সুষ্ঠুভাবে ভোট দিয়ে যাবে।

তিনি বলেন, এ নির্বাচনে কোনো ধরনের কোনো সহিংসতা খবর নেই। আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা সবাই সজাগ রয়েছে। ভোটকেন্দ্রের নিরাপত্তার দায়িত্বে পুলিশ-আনসার রয়েছে। এর বাইরে র‍্যাব আছে, বিজিবি আছে, আমাদের এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেট ও জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট রয়েছে। সব ধরনের প্রস্তুতি আমাদের রয়েছে। এখন পর্যন্ত কোনো নেতিবাচক বা সহিংসতার সংবাদ আমাদের কাছে আসেনি।

এর আগে সোমবার সকাল ৮টা থেকে খুলনার ২৮৯টি কেন্দ্রে ভোটগ্রহণ শুরু হয়।

কেসিসি নির্বাচনের রিটার্নিং কর্মকর্তার কার্যালয় সূত্রে জানা গেছে, এবারের নির্বাচনের মেয়র পদে প্রার্থী হয়েছেন ৫ জন। তারা হলেন আওয়ামী লীগের তালুকদার আব্দুল খালেক (নৌকা), জাতীয় পার্টির এস এম শফিকুল ইসলাম মধু (লাঙল), ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের মো. আব্দুল আউয়াল (হাতপাখা), স্বতন্ত্রপ্রার্থী এস এম শফিকুর রহমান (দেয়াল ঘড়ি) ও জাকের পার্টির এস এম সাব্বির হোসেন (গোলাপ ফুল)।

৩১টি ওয়ার্ডের ২৮৯টি কেন্দ্রে ১ হাজার ৭৩২টি ভোটকক্ষে ভোটগ্রহণ চলছে। ৩১টি সাধারণ ওয়ার্ডে ১৩৬ জন ও ১০টি সংরক্ষিত ওয়ার্ডে ৩৯ জন কাউন্সিলর প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। যার মধ্যে নগরীর ১৩ ও ২৪ নম্বর ওয়ার্ডে ২ জন কাউন্সিলর বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হয়েছেন।

নির্বাচন সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, নগরীতে টহল দিচ্ছে বিজিবির ১১ প্লাটুন সদস্য। নির্বাচনের দিন ভোটকেন্দ্র ও নগরীর নিরাপত্তায় দায়িত্ব পালন করছেন পুলিশ, র‍্যাব, বিজিবি, আনসারসহ আইনশৃংখলা বাহিনীর প্রায় ৮ হাজার ৩০০ জন সদস্য। নির্বাচনী মাঠে রয়েছেন ৪৪ জন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট এবং ১০ জন জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট।

ভোট কেন্দ্রগুলোতে স্থাপন করা হয়েছে ২ হাজার ৩০০টি ক্লোজ সার্কিট ক্যামেরা। ইভিএম মেশিন প্রয়োজন হচ্ছে প্রায় ৩ হাজার। পর্যবেক্ষক থাকবেন বেসরকারি দুটি সংস্থার ২০ জন ও নির্বাচন কমিশনের ১০ জন।

খুলনা মেট্রোপলিটন পুলিশ (কেএমপি) কমিশনার মো. মাসুদুর রহমান ভূঁঞা বলেন, খুলনা সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনকে ঘিরে নির্বাচনী এলাকায় নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার করা হয়েছে। সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণ নির্বাচন সম্পন্নের লক্ষ্যে সব ধরনের পদক্ষেপ গ্রহণ করা হয়েছে।

কেসিসি নির্বাচনের রিটার্নিং কর্মকর্তা আলাউদ্দিন জানান, খুলনা সিটি কর্পোরেশন নির্বাচন সকাল ৮টায় শুরু হয়ে বিকাল ৪টা পর্যন্ত চলবে ভোটগ্রহণ। সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণ পরিবেশে ভোটগ্রহণ সম্পন্ন হবে বলে তিনি আশা ব্যক্ত করেছেন। নির্বাচনের ফলাফল ঘোষণা করা হবে জেলা শিল্পকলা একাডেমি অডিটোরিয়ামে।




খুলনা গেজেটের app পেতে ক্লিক করুন

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

© 2020 khulnagazette all rights reserved

Developed By: Khulna IT, 01711903692

Don`t copy text!