খুলনা, বাংলাদেশ | ১১ জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ | ২৫ মে, ২০২৪

Breaking News

  ঘূর্ণিঝড়ের রূপ নিয়েছে ‘রেমাল’, মোংলা-পায়রা সমুদ্রবন্দরে ৭ এবং চট্টগ্রাম-কক্সবাজারে ৬ নম্বর বিপদ সংকেত
  উপকূলীয় এলাকায় লঞ্চ চলাচল বন্ধের নির্দেশ

খুলনায় বিএনপির বিভাগীয় সমাবেশের দিনে আ.লীগের ‘শান্তি সমাবেশ’

নিজস্ব প্রতিবেদক

খুলনায় আগামীকাল শনিবার (০৪ ফেব্রুয়ারি) শান্তি সমাবেশ করবে মহানগর আওয়ামী লীগ। বিকাল ৩টায় নগরীর শিববাড়ি মোড়ে এ সমাবেশ করার কথা রয়েছে। বৃহস্পতিবা (০২ ফেব্রুয়ারি) সন্ধ্যায় দলের বিশেষ বর্ধিত সভায় এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।

এর আগে ১০ দফা দাবি আদায়ে কেন্দ্রীয় ঘোষণা অনুযায়ী খুলনা মহানগর ও জেলা বিএনপি বিভাগীয় সমাবেশ করার প্রস্তুতি নিয়েছে। দলটি শনিবার এ কর্মসূচি পালনের জন্য শহীদ হাদিস পার্ক বা সোনালী ব্যাংক চত্বর বরাদ্দের জন্য সিটি করপোরেশনে চিঠি দিয়েছে।

আওয়ামী লীগের মহানগর সভাপতি ও সিটি মেয়র তালুকদার আব্দুল খালেকের সভাপতিত্বে সভা পরিচালনা করেন মহানগর সাধারণ সম্পাদক এম ডি এ বাবুল রানা।

সভায় উপস্থিত ছিলেন আওয়ামী লীগ নেতা বেগ লিয়াকত আলী, মল্লিক আবিদ হোসেন কবীর, বীর মুক্তিযোদ্ধা শেখ শহিদুল ইসলাম, বীর মুক্তিযোদ্ধা নুর ইসলাম বন্দ, বীর মুক্তিযোদ্ধা আবুল কালাম আজাদ, অধ্যক্ষ শহিদুল হক মিন্টু, জামাল উদ্দিন বাচ্চু, মো. আশরাফুল ইসলাম, শেখ মো. ফারুক আহমেদ, অধ্যা. আলমগীর কবির, এ্যাড. খন্দকার মজিবর রহমান, শেখ মো. আনোয়ার হোসেন, প্যানেল মেয়র আলী আকবর টিপু, মো. শাহজাদা, মো. মুন্সি মাহবুব আলম সোহাগ, প্যানেল মেয়র আমিনুল ইসলাম মুন্না, কাউন্সিলর শাছুজ্জামান মিয়া স্বপন, এ্যাড. অলোকা নন্দা দাস, বীর মুক্তিযোদ্ধা মাকসুদ আলম খাজা, শেখ ফারুক হাসান হিটলু, শেখ মো. জাহাঙ্গীর আলম, কামরুল ইসলাম বাবলু, বীরেন্দ্র নাথ ঘোষ, হাফেজ মো. শামীম, মো. মফিদুল ইসলমা টুটুল, নুর মোহাম্মদ শেখ, মোজাম্মেল হক হাওলদার, শেখ মোশাররফ হোসেন, বীর  মুক্তিযোদ্ধা শ ম রেজওয়ান, মাহবুবুল আলম বাবলু মোল্লা,  এ কে এম সানাউল্লাহ নান্নু, সিদ্দিকুর রহমান বুলু বিশ্বাস, শেখ আবিদ হোসেন, মনিরুল ইসলাম বাশার, তসলিম আহমেদ আশা, এস এম আনিছুর রহমান, বীর মুক্তিযোদ্ধা মোশাররফ হোসেন, কাউন্সিলর শেখ হাফিজুর রহমান, বীর মুক্তিযোদ্ধা কাউন্সিলর মুন্সি আব্দুল ওয়াদুদ, মনিরুজ্জামান খান খোকন, প্যানেল মেয়র এ্যাড. মেমরী সুফিয়া রহমান শুনু, কাউন্সিলর মো. সাইফুল ইসলাম, কাউন্সিলর শেখ শামসুদ্দিন আহমেদ প্রিন্স, কাউন্সিলর  মো. ডালিম হাওলাদার, কাউন্সিলর শেখ আব্দুর রাজ্জাক, কাউন্সিলর মুন্সি আব্দুল ওয়াদুদ, কাউন্সিলর ইমাম হাসান চৌধুরী ময়না, কাউন্সিলর এস এম মোজাফফর রশিদী রেজা, কাউন্সিলর এস এম খুরশিদ আহমেদ টোনা, কাউন্সিলর মো. আব্দুস সালাম, কাউন্সিলর এম ডি মাহফুজুর রহমান লিটন, কাউন্সিলর মনিরুজ্জামান, কাউন্সিলর কাজী তালাত হোসেন কাউট, কাউন্সিলর শেখ মোহাম্মদ আলী, কাউন্সিলর গোলাম মাওলা শানু, কাউন্সিলর মো. আরিফ হোসেন মিঠু, কাউন্সিলর মাহমুদা বেগম, কাউন্সিলর পারভিন আক্তার, কাউন্সিলর রহিমা আক্তার হেনা, কাউন্সিলর মনিরা আক্তার, কাউন্সিলর শাহিদা বেগম, কাউন্সিলর শেখ আমেনা হালিম বেবী, কাউন্সিলর কনিকা সাহা, বীর মুক্তিযোদ্ধা মো. মোতালেব মিয়া, এ্যাড. সুলতানা রহমান শিল্পী, রনজিত কুমার ঘোষ, মো. সফিকুর রহমান পলাশ, এম এ নাসিম, অধ্যা. এ বি এম আদেল মুকুল, এস এম আসাদুজ্জামান রাসেল, মো. মফিজুর রহমান জিবলু, শেখ আব্দুল আজিজ, শেখ আবিদ উল্লাহ, মো. বাবুল সরদার বাদল, শেখ ইকবাল হোসেন, খান হাফিজুর রহমান, মো. নুর ইসলাম, কাজি জাকারিয়া রিপন, মো. শাহাদাত মিনা, কাজী সাফায়েত হোসেন প্যারেট, সরদার আলী আহমেদ, মো. শফিউল্লাহ, মো. আসলাম আলী, আব্দুস সাত্তার লিটন, মো. জাকির হোসেন, শেখ মফিজুর রহমান হিরু, চ. ম. মজিবুর রহমান, মো. আছিফুর রহমান আছিফ, মো. আব্দুর রশীদ মোড়ল, শেখ অহিদুজ্জামান, মোরশেদ আহমেদ মনি, চৌধুরী মিনহাজ উজ জামান সজল, মো. জাহিদুল হক, খসরুল আলম, মো. হায়দার আলী,   আতাউর রহমান শিকদার রাজু, সরদার আব্দুল হালিম, শেখ মো. রুহুল আমিন, মো. হারুনুর রশিদ, শেখ হাসান ইফতেখার চালু, মো. আজম খান, শেখ আব্দুল হক, মো. ইউসুফ খান, মো. জিয়াউর রহমান, মোড়ল হাবিবুর রহমান, খ ম লিয়াকত আলী, মো. মোতালেব মিয়া, রেজাউল শেখ, মো. আবু জাফর হাওলাদার, মো. ইমরুল ইসলাম, মো. ফয়েজুল ইসলাম টিটো, মো. সেলিম হোসেন, মো. শাহজাহান জমাদ্দার, জিয়াউল আলম খান, এম এম মনিরুজ্জামান মুকুল, মো. মাকসুদ হাসান পিকু, মো. অহিদুল ইসলাম পলাশ, মো. নজরুল ইসলাম তালুকদার, কামরুজ্জামান বাবুল, মো. শিহাব উদ্দিন।

সভায় সিটি মেয়র তালুকদার আব্দুল খালেক বলেন, দলের শৃঙ্খলা বজায় রেখে সংগঠন পরিচালনা করতে হবে। যারা সংগঠন পরিপন্থী কর্মকাণ্ড করবে তাদের বিরুদ্ধে সাংগঠনিকভাবে কঠোর ব্যবস্থা নেয়া হবে। বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ একটি সুশৃঙ্খল গণতান্ত্রিক রাজনৈতিক দল। এ দলে কোন অগণতান্ত্রিক কর্মকান্ড পরিচালিত হয় না। সুতরাং বিএনপি- জামায়াতকে মোকাবেলা করতে সংগঠনকে আরো শক্তিশালী করতে হবে।
তিনি বলেন, ৪ ফেব্রুয়ারি আওয়ামী লীগের শান্তি সমাবেশ অনুষ্ঠিত হবে। এ সমাবেশকে জনসতায় পরিণত করে ষড়যন্ত্রকারীদের দাঁতভাঙ্গা জবাব দিতে হবে। তিনি আরো বলেন, খুলনায় শান্তি সমাবেশের কথা শুনে বিএনপি নেতাদের মাথা খারাপ হয়ে গেছে। সমাবেশকে কেন্দ্র করে তারা নানাবিধ ষড়যন্ত্রের জাল বুনতে শুরু করেছে। তাদের এ ষড়যন্ত্রকে সফল হতে দেয়া যাবে না। সেজন্যে সকল ভেদাভেদ ভুলে গিয়ে শেখ হাসিনার হাতকে শক্তিশালী করতে হবে।
মহানগর আওয়ামী লীগের দপ্তর সম্পাদক মুন্সি মাহবুব আলম সোহাগ জানান, শান্তি সমাবেশের জন্য প্রস্তুতি চলছে। ইতিমধ্যে নেতাকর্মীরা কাজ শুরু করেছেন।
খুলনা গেজেট/কেডি




আরও সংবাদ

খুলনা গেজেটের app পেতে ক্লিক করুন

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

© 2020 khulnagazette all rights reserved

Developed By: Khulna IT, 01711903692

Don`t copy text!