খুলনা, বাংলাদেশ | ৮ জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ | ২২ মে, ২০২৪

Breaking News

  সাবেক সংসদ সদস্য মানু মজুমদার মারা গেছেন
  নিখোঁজ এমপি আনোয়ারুল আজীম আনারের মরদেহ উদ্ধার কলকাতায়

হজ্ব পালনের সহজ পদ্ধতি (পর্বঃ ০৪)

হাফেজ মাও. মুফতি জুবায়ের হাসান

হজ্ব আদায়ের ক্ষেত্রে ত্রুটি-বিচ্যুতি ঃ-

হজ্ব ও উমরায় যে সকল কাজ শরিয়তে নিষিদ্ধ তা করে ফেললে হজ্বের মাঝে ত্রুটি-বিচ্যুতি সাব্যস্ত হয়। যাকে পরিভাষায় ‘জিনায়াত’ বলা হয়। এর মধ্যে কতক ইহরামের সাথে সম্পৃক্ত আর কতক হরম এর সীমানার সাথে সম্পৃক্ত। (-আদ্দুররুল মুখতার ৩/৫৮১; গুনিয়াতুন নাসিক পৃ. ২৩৮)

নিম্নে কিছু পরিভাষা উল্লেখ করা হল-

দম: এর দ্বারা উদ্দেশ্য কুরবানির উপযুক্ত ছাগল, দুম্বা ও ভেড়া। উট, গরু অথবা মহিষের এক সপ্তমাংশ। দম হরম এর সীমানাতেই জবেহ করতে হবে। অন্য কোথাও জবেহ করলে তা আদায় হবে না। এর গোশত মালিক ও তাঁর পরিবারের কেউ ভক্ষণ করতে পারবে না। এটা শুধুমাত্র গরীবের হক্ব। যদি মালিক অথবা তাঁর পরিবারের কেউ তা ভক্ষণ করে, তাহলে তাঁর মূল্য অনুমান করে সদকা করা জরুরি। (-গুনিয়াতুন নাসিক পৃ. ২৬৩)

কী কী কারণে দম আসে –

১. হজ্ব অথবা উমরার কোন ওয়াজিব তরক করা।

২. কোন অপারগতা ব্যতীত হজ্ব ও উমরার কোন আমল (ফরজ/ওয়াজিব) আদায়ের নির্দিষ্ট সময় পার হয়ে যাওয়ার পর আদায় করা।

৩. কোন অপারগতা ব্যতীত ইহরাম অবস্থায় নিষিদ্ধ কাজগুলোর কোন একটি পরিপূর্ণ রূপে সম্পন্ন করা। (যেমনঃ পূর্ণ ১২ ঘন্টা মাথা ও চেহারা কাপড় ইত্যাদি দ্বারা আবৃত করে রাখা।)

বাদানাহ: এর দ্বারা উদ্দেশ্য কুরবানির উপযুক্ত উট, গরু বা মহিষ। বাদানাহ হরম এর সীমানাতেই জবেহ করতে হবে।

কী কী কারণে বাদানাহ আসে-

১.অপবিত্র অবস্থায় তাওয়াফ করলে।

২. আরাফার ময়দানে অবস্থানের পূর্বে স্ত্রী সহবাস করা।

৩. আরাফার ময়দানে অবস্থানের পরে ইহরাম থেকে হালাল হওয়ার পূর্বে স্ত্রী সহবাস করা।

আরও পড়ুন

# হজ্ব পালনের সহজ পদ্ধতি (পর্বঃ ০৩)
# হজ্ব পালনের সহজ পদ্ধতি (পর্বঃ ০২)
# হজ্ব পালনের সহজ পদ্ধতি (পর্বঃ ০১)

সাদাকাহ: এর দ্বারা উদ্দেশ্য সাধারণত একটি সদকাতুল ফিতর পরিমাণ। (খেজুর, কিসমিস বা পনিরের ক্ষেত্রে ৩.৫ কেজি বা তাঁর মূল্য, গমের ক্ষেত্রে ১ কেজি ৭০০ গ্রাম বা তাঁর মূল্য।) এই সাদাকাহ যেকোন স্থানে আদায় করা যায়, তবে উত্তম হল হরম এর সীমানায় আদায় করা। একটি সাদাকাহ একজন ফকিরকে দেওয়া উত্তম। কয়েকটি সাদাকাহ একবারে একজনকে দিলে একটিই আদায় হবে। এ জন্য সাদাকাহ ভিন্ন ভিন্ন ফকীরকে দেওয়া উচিত।

কী কী কারণে সাদাকাহ আসে-

১. কোন অপারগতা ব্যতীত ইহরাম অবস্থায় নিষিদ্ধ কাজগুলোর কোন একটি পরিপূর্ণ রূপে সম্পন্ন না করা। বরং অল্পস্বল্প করা। (যেমনঃ ১২ ঘন্টার কম সময় মাথা ও চেহারা ঢেকে রাখা)

২. কোন বিশেষ অপারগতার কারণে ইহরাম অবস্থায় নিষিদ্ধ কাজগুলোর কোন একটি পরিপূর্ণ রূপে সম্পন্ন করা। (যেমনঃ মাত্রাতিরিক্ত ঠান্ডার কারণে ১২ ঘন্টার অতিরিক্ত মোজা, জ্যাকেট ইত্যাদি পরিধান করে থাকা।)

জাযা/কাফফারা/ফিদয়া- এর উদ্দেশ্য ভিন্ন ভিন্ন হয়ে থাকে। কখনো দম বুঝানো হয়, আবার কখনো সাদাকাহ বুঝানো হয়।

দু’টি গুরুত্বপূর্ণ মাসআলা:

১. হজ্বের সফরে আল্লাহর রাস্তায় গমনকারী হাজি সাহেবগণ মক্কা, মিনা, মুজদালিফা, আরাফা প্রভৃতি স্থানে মুসাফির হবেন নাকি মুকিম? এই প্রশ্নের সহজ উত্তর হলো- যে সকল ব্যক্তিগণ মক্কা, মিনা, মুজদালিফা, আরাফা ইত্যাদি স্থানে ১৫ দিন বা তার অতিরিক্ত অবস্থানের নিয়ত করবেন তারা সেখানে মুকিম হবেন, এবং তাদেরকে পূর্ণ নামাজ আদায় করতে হবে।

আর যে ব্যক্তি একবার সেখানে ১৫ দিন বা তার অতিরিক্ত অবস্থানের নিয়ত করে নিবে অতঃপর শুধুমাত্র নিয়ত পরিবর্তনের দ্বারা তার ইকামাত বাতিল হবে না। বরং তাকে শহরের সীমানা থেকে বের হতে হবে। আর মনের ইচ্ছাকেই নিয়ত বলা হয়।

(যেমন- কোন ব্যক্তির মনের ইচ্ছা হলো, সে মক্কায় ২০ দিন অবস্থান করবে, আর সে মুখে মুখে নিয়ত করে নিল যে, মক্কায় ১০ দিন অবস্থান করবে। এমতাবস্থায় তার মৌখিক নিয়ত ধর্তব্য হবে না।)

আর যারা উল্লেখিত স্থানগুলোতে ১৫ দিনের কম অবস্থানের নিয়ত করবে তারা সেখানে মুসাফির। কারণ, মক্কা শহরের পরিচিতি এখন মিনা মুজদালিফা, আরাফা পর্যন্ত বিস্তৃত, সুতরাং পুরো যায়গাটি একটি শহর হিসেবে পরিগণিত হবে। (বাদায়েউস সানায়ে ২/৯৪, ফাতাওয়া রহিমিয়্যা ৫/১৭৫)

২. যে সকল হাজি সাহেবগন আইয়ামে নহর তথা কুরবানির দিনগুলোতে মক্কায় মুকিম হবেন, তারা যদি প্রয়োজন অতিরিক্ত নিসাব পরিমাণ সম্পদের মালিক হন, তাহলে তাদের ওপর ইদুল আজহার কুরবানি করা ওয়াজিব সাব্যস্ত হবে। এই কুরবানি নিজ নিজ দেশে অথবা সৌদি আরব যেকোন স্থানে সম্পন্ন করলেই তা দুরস্ত হয়ে যাবে। আর যারা উল্লিখিত দিনগুলোতে মুসাফির থাকবেন, তাদের জন্য ইদুল আজহার কুরবানি করা ওয়াজিব নয়। (আদ্দুররুল মুখতার ৬/৩১৫)

বিশেষ লক্ষণীয়:

হজ্ব এবং উমরাহ্ এর মৌলিক বিষয়গুলো নির্ভরযোগ্য কিতাব থেকে সংগ্রহ করতঃ মুস্তাহাব নিয়ম অনুযায়ী একেবারে সংক্ষেপে উপরে উল্লেখ করা হল। এগুলো ছাড়াও খুঁটিনাটি হজ্বের আরো বহু স্পর্শকাতর মাসআলা রয়েছে। প্রয়োজন হলে কোন হক্কানি আলেম থেকে তা জেনে নেওয়া আবশ্যক।

(চলবে ….. )

খুলনা গেজেট/এএজে




খুলনা গেজেটের app পেতে ক্লিক করুন

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

© 2020 khulnagazette all rights reserved

Developed By: Khulna IT, 01711903692

Don`t copy text!