খুলনা, বাংলাদেশ | ৩১ শ্রাবণ, ১৪২৯ | ১৫ আগস্ট, ২০২২

Breaking News

  দেশে ডলারের বাজার স্থিতিশীল করতে বাণিজ্যিক ব্যাংকগুলোকে আন্তঃব্যাংক ডলার বেচাকেনার নির্দেশ দিয়েছে বাংলাদেশ ব্যাংক
  গুম বলে আমাদের দেশে কোনো শব্দ নেই : পররাষ্ট্রমন্ত্রী

সরকার শিশুস্বাস্থ্য সুরক্ষায় অত্যন্ত আন্তরিক : কেসিসি মেয়র

নিজস্ব প্রতিবেদক

খুলনা মহানগরী এলাকায় জাতীয় ভিটামিন ‘এ’ প্লাস ক্যাম্পেইন শুরু হয়েছে। বুধবার (১৫ জুন) সকালে সিটি মেয়র তালুকদার আব্দুল খালেক নগরীর খালিশপুর কলেজিয়েট গার্লস স্কুলে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে একটি শিশুকে ক্যাপসুল খাওয়ানোর মধ্য দিয়ে আনুষ্ঠানিকভাবে ক্যাম্পেইনের উদ্বোধন করেন। আগামী ১৯ জুন রবিবার পর্যন্ত ৫ দিন ব্যাপী এ ক্যাম্পেইন চলমান থাকবে।

জাতীয় ভিটামিন ‘এ’ প্লাস ক্যাম্পেইন উদ্বোধনকালে সিটি মেয়র বলেন, সরকার শিশুস্বাস্থ্য সুরক্ষায় অত্যন্ত আন্তরিক। শিশুদের রোগ-ব্যাধির কবল থেকে মুক্ত রাখতে ভিটামিন ‘এ’ প্লাস ক্যাম্পেইনের গুরুত্ব তুলে ধরে তিনি বলেন, শিশুরা দেশের ভবিষ্যৎ কর্ণধার। তাদের সুস্থ্যভাবে বেড়ে ওঠার পরিবেশ আমাদেরই নিশ্চিত করতে হবে। সে কারণে সরকার কর্তৃক গৃহীত জনগুরুত্বপূর্ণ এ কর্মসূচি থেকে একটি শিশুও যেন বাদ না পড়ে সেদিকে লক্ষ্য রাখার জন্য তিনি সংশ্লিষ্টদের নির্দেশ দেন।

কেসিসি’র প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (যুগ্মসচিব) লস্কার তাজুল ইসলাম-এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তৃতা করেন কেসিসি’র শিক্ষা, স্বাস্থ্য, পরিবার পরিকল্পনা এবং স্বাস্থ্য রক্ষা ব্যবস্থা স্থায়ী কমিটির সভাপতি কাউন্সিলর মোঃ মনিরুজ্জামান, কাউন্সিলর মোঃ সাইফুল ইসলাম, শেখ মোহাম্মদ আলী, মোঃ সুলতান মাহমুদ পিন্টু, কাজী তালাত হোসেন কাউট, বীর মুক্তিযোদ্ধা মুন্সী আব্দুল ওয়াদুদ, শেখ মোসারাফ হোসেন, সংরক্ষিত আসনের কাউন্সিলর মনিরা আক্তার, পারভীন আক্তার, স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের সহকারী পরিচালক (রোগ নিয়ন্ত্রণ) অর্পণা বিশ্বাস, সিভিল সার্জন ডা. সুজাত আহমেদ, ইউনিসেফ-খুলনার চীফ ফিল্ড অফিস মো: কাউসার হোসেন ও পুষ্টি বিষয়ক কর্মকর্তা ডা. শাহনাজ বেগম।

অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন কেসিসি’র সহকারী স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা. শরীফ শাম্মিউল ইসলাম।

উল্লেখ্য, নগরীর ৬-১১ মাস বয়সী ১২ হাজার ৬০৩ জন শিশুকে নীল রঙের এবং ১২-৫৯ মাস বয়সী ৯৭ হাজার ১৫৩জন শিশুকে লাল রঙের ভিটামিন এ ক্যাপসুল খাওয়ানোর লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে। কর্মসূচি সফল করতে নগরীর ৩১টি ওয়ার্ডের ৪টি জোনে ১৯০টি কেন্দ্রে ৬২ জন সুপারভাইজাররের তত্ত্বাবধানে ১ হাজার ৪২০ জন স্বেচ্ছাসেবী নিয়োজিত থাকবে।




আরও সংবাদ

খুলনা গেজেটের app পেতে ক্লিক করুন

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

© 2020 khulnagazette all rights reserved

Developed By: Khulna IT, 01711903692