খুলনা, বাংলাদেশ | ৫ জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৯ | ১৯ মে, ২০২২

Breaking News

  ২২ মে পর্যন্ত বাড়ানো হলো সরকারি-বেসরকারি হজযাত্রী নিবন্ধনের সময়
  সংসদের বাজেট অধিবেশন বসছে ৫ জুন
হত্যাকান্ডে ব্যবহৃত মোটরসাইকেল উদ্ধার যশোরে

তৃতীয় লিঙ্গের লাবনী হত্যায় আটক চার জনের আদালতে স্বীকারোক্তি

নিজস্ব প্রতিবেদক, যশোর

যশোরের তৃতীয় লিঙ্গের লাবনী ওরফে লাভলী হত্যা মামলায় আটক চার আসামি আদালতে স্বিকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন। সোমবার সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মঞ্জুরুল ইসলাম আসামিদের জবানবন্দি গ্রহণ শেষে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন। আসামিরা হলেন, যশোর সদর উপজেলার দোগাছিয়া গ্রামের জিয়াউর রহমানের ছেলে শাকিল পারভেজ (২১), ঝাউদিয়া গ্রামের শাহাজুল বিশ্বাসের ছেলে মেহেদী হাসান (১৯), শহরতলীর খোলাডাঙ্গা গাবতলা স্কুল এলাকার জিয়াউর রহমানের স্ত্রী নাজমা ওরফে হিজড়া নাজমা ও একই এলাকার সুজনের স্ত্রী সেলিম ওরফে হিজড়া সেলিনা।

এদিকে, ডিবি পুলিশ রোববার রাতে সদর উপজেলার বালিয়াডাঙ্গা গ্রাম থেকে হত্যা মিশনে ব্যবহৃত মোটরসাইকেল উদ্ধার করেছে। একই সাথে এ ঘটনায় জড়িত অপর আসামি জিয়াউরকে আটকের অভিযান অব্যাহত রয়েছে।

আদালত সূত্র ও ডিবি পুলিশ জানায়, আদালতে দেয়া আসামিদের জবানবন্দিতে উঠে এসেছে লাবনী হত্যার চাঞ্চল্যকর সব তথ্য। আসামিরা জানিয়েছেন, নিহত লাবনী ধর্মতলা এলাকার তৃতীয় লিঙ্গ (হিজড়া) স¤প্রদায়ের নেতা ছিলেন। লাবনীকে হত্যা করতে পারলে দলনেতা হবেন আসামি নাজমা। লাবনীর সবকিছু দেখা শুনা করবেন নাজমা ও তার স্বামী জিয়াউর। জিয়াউর রহমান এ হত্যাকান্ডের ইন্দনদাতা। জিয়া হত্যায় ব্যবহৃত অস্ত্র ও চাকু ম্যানেজ করে দিয়েছিলো। এমনকি কিভাবে হত্যা করবে তার পরিকল্পনাও ছিলো তার। যা আসামিদের দেয়া বক্তব্যে উঠে এসেছে বলে সূত্রটি নিশ্চিত করেছেন। অপর একটি সূত্র জানিয়েছে, লাবনী নেতা হওয়ায় নাজমা ও সেলিনার উপর নির্যাতন চালাতেন। এরই জেরে তাকে হত্যা করা হয়েছে।
এদিকে, সোমবার আটক চার আসামিকে ডিবি পুলিশ আদালতে হাজির করার পর শত শত তৃতীয় লিঙ্গের সদস্যরা হাজির হয়। ঘটনার ২৪ ঘন্টার মধ্যে হত্যার রহস্য উন্মোচনের জন্য ডিবি পুলিশের এসআই মফিজুল ইসলামকে ফুলের মালা দিয়ে শুভেচ্ছা জানান। এসময় তারা আদালতের সামনে হত্যাকারিদের ফাসির দাবিতে বিক্ষোভ করেন।

একই দাবিতে তারা প্রেসক্লাব যশোরের সামনে তৃতীয় লিঙ্গের জনগোষ্ঠীর ব্যানারে মানববন্ধন করেন। পরে তারা যশোরের জেলা প্রশাসক বরাবর স্মারকলিপি দেন।

মানববন্ধনে অংশ নেন, যশোরের তৃতীয় লিঙ্গের নিলু, চাঁদনী, সোহেলী, অনজু, পাহাড়ী, চুমকি, খুলনার বিভাগের তৃতীয় লিঙ্গের প্রতিনিধি দিতি খাতুন, কুলসুম বেগম প্রমুখ। তাদের সাথে একত্ততা প্রকাশ করে মানববন্ধনে অংশ নেন জেলা এনজিও সমন্বয়কারী শাজাহান নান্নু, বøাস্ট যশোর ইউনিটের কো-অর্ডিনেটর অ্যাডভোকেট মোস্তফা হুমায়ন কবীর, নাগরিক উদ্যোগের জেলা সমন্বয়কারী নাসির উদ্দিন, লাইট হাউজের ডিআইসি ম্যানেজার মিলন মন্ডল। মানববন্ধন পরিচালনা করেন অর্পন মানব কল্যান সংস্থার কো-অর্ডিনেটর রুবাইদুল হক ইমন।

উল্ল্যেখ্য, গত শনিবার সকালে লাবনী ও তার দুই সহযোগী ইজিবাইকে করে কায়েককোলা বাজারে যাচ্ছিলেন। হালসা গ্রামে পৌছানো মাত্র ইজিবাইক গতিরোধ করে প্রথমে গুলি করে শাকিল ও মেহেদি। কিন্তু গুলি লক্ষ্যভ্রস্ট হলে লাবনীকে এলোপাতাড়ি ছুরিকাঘাত করে গুরুতর জখম করা হয়। পরে হাসপাতালে নিলে লাবনির মৃত্যু হয়। পুলিশ ঘটনার পরই লাবনীর সাথে থাকা দু’জনকেই জিজ্ঞাসাদের জন্য হেফাজতে নেন। এরপরই বেরিয়ে আসে হত্যা রহস্য।




আরও সংবাদ

খুলনা গেজেটের app পেতে ক্লিক করুন

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

© 2020 khulnagazette all rights reserved

Developed By: Khulna IT, 01711903692