খুলনা, বাংলাদেশ | ২০ মাঘ, ১৪২৯ | ৩ ফেব্রুয়ারি, ২০২৩

Breaking News

  বিশ্বজুড়ে ২৪ ঘণ্টায় করোনায় মৃত্যু ১ হাজার ৩০০ জন, আক্রান্ত হয়েছেন ১ লাখ ৯৭ হাজার ১০৪ জন
  আইএমএফের ঋণের ৪৭৬ মিলিয়ন ডলারের প্রথম কিস্তি পেয়েছে বাংলাদেশ

ডুমুরিয়ায় শীত মৌসুমে কোটি টাকার সবজি উৎপাদন, খুশি চাষীরা

গাজী আব্দুল কুদ্দুস, ডুমুরিয়া

খুলনার শস্যভাণ্ডার নামে খ্যাত উর্বর ভূমি ডুমুরিয়ায় এবার শীতকালীন সবজির বাম্পার ফলন হয়েছে। এ মৌসুমে উপজেলায় প্রায় কোটি টাকার শীতকালীন সবজি উৎপাদনের লক্ষমাত্রা ধরা হয়েছে। সবজি উৎপাদনে নতুন প্রযুক্তি ব্যবহারে সফলতা পেয়েছে বলে মনে করছে কৃষক ও কৃষি বিভাগ। ফলে ভালো উৎপাদনের পাশাপাশি ডুমুরিয়ায় গড়ে উঠেছে সবজির বাজার। সারা বছরই ডুমুরিয়ায় সবজির আবাদ হয়। তবে সবচেয়ে বেশি সবজির আবাদ হয় শীতকালে। নিরাপদ ও বালাই মুক্ত সবজি বিদেশে রপ্তানিও করা হয়। বিশেষ করে নিজেদের কষ্টার্জিত সবজি বিদেশে রপ্তানি হওয়ায় খুশি এ অঞ্চলের কৃষকরা। ভালো দাম পাওয়ায় প্রতি বছর শাকসবজির আবাদ বাড়ছে। বিশেষ করে আগাম জাতের শাকসবজি আবাদ করে ভালো লাভ পাওয়া যাচ্ছে। অনুকূল আবহাওয়ায় সবজির উৎপাদন ভালো হওয়ায় ও বাজার দর ভালো পেয়ে লাভবান হয়েছে তারা।

শুধু নিজেদের চাহিদাই নয়, বাণিজ্যিকভাবে চাষ হচ্ছে এসব সবজি। সবুজে সবুজে ভরে উঠেছে মাঠ। বিস্তীর্ণ মাঠ জুড়ে এখন শোভা পাচ্ছে সারি সারি লাউ, শিম, ফুলকপি, বাঁধাকপি, ওলকপি, মরিচ, লালশাক, মূলা শাক, পালং শাক, লাউ শাকসহ হরেক রকমের শীতকালীন সবজি। তাই মাঠে মাঠে এসব ফসল পরিচর্যায় এখন ব্যস্ত কৃষকরা।

উপজেলা কৃষি অফিস সূত্রে জানা যায়, এবার উপজেলায় ৩৬ শত ৫০ হেক্টর জমিতে শীতকালীন শাকসবজির আবাদ করা হয়েছে। যার মধ্যে উল্লেখযোগ্য সিম ৩৫০ হেক্টর, টমেটো ২২০ হেক্টর, ৩৬০ হেক্টর বেগুন, ২৬০ হেক্টর ফুলকপি, ১৬০ হেক্টর আলু, ১৬৫ হেক্টর সরিষা।

ডুমুরিয়ার এসব সবজি স্থানীয় চাহিদা পূরণ করে সরাসরি ঢাকার কাওরানবাজারে যায়। এছাড়া ইতালি, ইংল্যান্ড, কোরিয়ায় এখানের সবজি রপ্তানি করা হয়। এবার প্রায় কোটি টাকার শীতকালীন শাকসবজি উৎপাদন করা হয়েছে ডুমরিয়ায়। শীতে নানা জাতের সবজি চাষ করে স্বাবলম্বী হয়ে উঠছে স্থানীয় কৃষকরা।

খর্নিয়ায় বঙ্গবন্ধু কৃষি পদকপ্রাপ্ত দেশ সেরা সবজি চাষি আবু হানিফ মোড়ল জানায়, এবার শীতকালীন সবজির ফলন ভালো হয়েছে। বিশেষ করে ফুলকপি, ওলকপি, বাঁধাকপি, টমেটো, সিম, বেগুন, লাল শাক ইত্যাদি। এ বছর দামও ভালো পাচ্ছি।

শোভনার মলমলিয়া গ্রামের কৃষক কামাল বাওয়ালী বলেন, শীতকালীন সবজির বাম্পার ফলন হয়েছে। সিম, টমেটো, ওলকপি চাষ করেছিলাম। ৬ বিঘার ঘেরের ভেড়িতে এসব সবজি চাষ করেছিলাম। দাম ভালো পেয়েছি।

আটলিয়া ইউপি চেয়ারম্যান শেখ হেলাল উদ্দীন বলেন, কৃষককে সার, বীজ ও প্রশিক্ষণ দিয়ে বিভিন্ন সময় সহযোগিতা করে কৃষি বিভাগ। আমরা পরিষদের পক্ষ থেকে মাঝে মধ্যে সার ও বীজ দিয়ে গরীব কৃষকদের সহযোগিতা করি।

ডুমুরিয়া উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা কৃষিবিদ মোঃ ইনসাদ ইবনে আমিন বলেন, এ বছর ডুমুরিয়ায় শীতকালীন সবজির বাম্পার ফলন হয়েছে। শীতের সবজিতে দাম ভালো পাওয়ায় কৃষকের মুখে ফুটেছে হাসি। নানা জাতের শীতকালীন সবজি চাষ করে স্বাবলম্বী হয়ে উঠেছে কৃষক।




আরও সংবাদ

খুলনা গেজেটের app পেতে ক্লিক করুন

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

© 2020 khulnagazette all rights reserved

Developed By: Khulna IT, 01711903692

Don`t copy text!