খুলনা, বাংলাদেশ | ৩ ভাদ্র, ১৪২৯ | ১৮ আগস্ট, ২০২২

Breaking News

  কমছে ডলারের দাম, নেমেছে ১১০ টাকার নিচে
  গাজীপুরে প্রাইভেটকারের ভেতর থেকে শিক্ষক দম্পতির মরদেহ উদ্ধার

খুলনায় তিনটি কোরবানির পশুর হাট অনুমতি পায়নি

নিজস্ব প্রতিবেদক

দূরত্ব কম ও রাজস্ব কম আদায় হওয়ায় প্রশাসন জেলার ৩টি পশুর হাটকে এবার অনুমোদন দেয়নি। অনুমোদন দেওয়া হাটগুলোকে করোনা প্রতিরোধের শর্ত মেনে চলতে তাগিদ দেওয়া হয়েছে। ২৪ টি পশুর হাটকে এবার প্রশাসন অনুমোদন দিয়েছে। এরমধ্যে অধিকাংশই স্থায়ী।

এবার অনুমোদন না পাওয়া হাটগুলোর মধ্যে রয়েছে দিঘলিয়ার উপজেলার বারাকপুর, পাইকগাছা উপজেলার জিরো পয়েন্ট ও কয়রা উপজেলার দেওলিয়া।

অনুমোদন পাওয়া হাটগুলো হচ্ছে নগরীর জোড়াগেট, ফুলতলা উপজেলা সদর, দিঘলিয়া উপজেলার যোগীপোল, পথেরবাজার, এম এ মজিদ কলেজ, মোল্যাডাংগা, তেরোখাদা উপজেলা সদরের ইখুড়ীকাটেংগা, রূপসা বাসস্টান্ড, দাকোপ উপজেলার চালনা, লাউডোব, পাইকগাছা উপজেলার বাকা, গদাইপুর, চাঁদখালী, কাশিমনগর, ডুমুরিয়া উপজেলার শাহাপুর, খর্নিয়া, আঠারমাইল, কয়রা উপজেলার ঘুগরাকাটি, বামিয়া, বটিয়াঘাটা উপজেলা সদর, খারাবাদ-বাইনতলা, বরোআড়িয়া ও ভান্ডারকোট।

প্রাণী সম্পদ অধিদপ্তর, ভেটেরেনারী পাবলিক হেলথ এর উপ-পরিচালক ডাঃ এবিএম জাকির হোসেন জানান, অসুস্থ গোবাদী পশু হাটে না আনার পরামর্শ দেওয়া হয়েছে। স্থানীয় হাটগুলোতে ভেটেরেনারী টিমগুলো দায়িত্ব পালন করছে।

উল্লেখ্য, এবার জেলায় ২১ হাজার ষাড়, বলদ ও বকনা প্রস্তুত রাখা হয়েছে। এছাড়া ১২ হাজার ছাগল ও ভেড়া প্রস্তত রয়েছে। প্রাণী সম্পদ দপ্তরের তথ্য অনুযায়ী খুলনায় এবারও কোরবানির পশুর ঘাটতি থাকলেও আশেপাশের জেলাগুলো থেকে তা পূরণ হয়ে যাবে বলে সংশ্লিষ্টদের ধারণা।

খুলনা গেজেট/ টি আই




আরও সংবাদ

খুলনা গেজেটের app পেতে ক্লিক করুন

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

© 2020 khulnagazette all rights reserved

Developed By: Khulna IT, 01711903692