খুলনা, বাংলাদেশ | ১০ বৈশাখ, ১৪৩১ | ২৩ এপ্রিল, ২০২৪

Breaking News

  বাস-মোটরসাইকেল সংঘর্ষে চট্টগ্রাম প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (চুয়েট) দুই শিক্ষার্থী নিহত
  খুলনায় ৪০.৫ ডিগ্রি তাপমাত্রা, যশোর ও চুয়াডাঙ্গায় ৪০.৬
  ব্রাহ্মণবাড়িয়ার কসবা সীমান্তে বিএসএফ’র গুলিতে বাংলাদেশি যুবক নিহত
সেনেগাল

২০ দিনের ব্যবধানে কারাবন্দী থেকে প্রেসিডেন্ট

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

একটি বড় সময়ের রাজনৈতিক অস্থিরতা পেরিয়ে মঙ্গলবার সেনেগালের নতুন প্রেসিডেন্ট হিসেবে শপথ নেন ৪৪ বছর বয়সী ফায়ে। বিদায়ী প্রেসিডেন্ট ম্যাকি সল ১২ বছর ধরে দেশটির ক্ষমতায় ছিলেন। তিনি তাঁর শাসনকাল তৃতীয় মেয়াদে টেনে নিতে চেষ্টা করবেন এমন শঙ্কার অবসান ঘটে ফায়ের শপথগ্রহণের মধ্য দিয়ে।

কয়েক মাস ধরে অনিশ্চয়তায় কেটেছে সেনেগালবাসীর। তবে প্রেসিডেন্ট নির্বাচন ও গেল সপ্তাহে তাতে তরুণ ও প্রতিষ্ঠানবিরোধী প্রার্থী, যিনি ২০ দিন আগেও কারাগারে ছিলেন, তাঁর বিজয় দেশবাসীর মধ্যে স্বস্তির অনুভূতি এনেছে যে, পরিবর্তন ঘটছে।

২০২১ সালের মার্চ থেকে চলতি বছরের ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত সেনেগালে হাজার হাজার মানুষকে গ্রেপ্তার করা হয়। বাসিরু দিওমায়ে ফায়েও ছিলেন তাঁদের মধ্যে।

সেনেগালে এই নির্বাচন হওয়ার কথা ছিল গত ফেব্রুয়ারিতে। কিন্তু নির্বাচনী প্রচার শুরু হওয়ার কয়েক দিন আগে প্রেসিডেন্ট সল দেশটির ইতিহাসে প্রথমবারের মতো নির্বাচন স্থগিত করেন। দুর্নীতিবাজদেরও প্রার্থীর তালিকায় রাখার অভিযোগ তুলে ওই পদক্ষেপ নিয়েছিলেন তিনি। সমালোচকেরা এটাকে দেখেন, তাঁর ক্ষমতা ধরে রাখার চেষ্টা হিসেবে।

পরে সেনেগালের সাংবিধানিক পরিষদ প্রেসিডেন্টের ওই সিদ্ধান্ত বাতিল করে ২ এপ্রিলে তাঁর সরকারের মেয়াদ শেষ হওয়ার আগে নতুন নির্বাচন আয়োজনের নির্দেশ দেয়। ২৪ মার্চের নির্বাচনে সেনেগালের ৭০ লাখ বাসিন্দার ৬৬ শতাংশ ভোটকেন্দ্রে গিয়ে তাঁদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করেন।

শেষের কয়েক বছরে রাজনৈতিক টালমাটাল অবস্থা প্রেসিডেন্ট সলের ১২ বছরের শাসনকালকে মলিন করে দিয়েছে। ২০২০ সালে করোনা মহামারির সময় যেসব বিধিনিষেধ আরোপ করা হয়েছিল, সেগুলো সেনেগালের অর্থনীতি ও মানুষের জীবনমানের ওপর নেতিবাচক প্রভাব ফেলেছিল। আর পরের বছর বিরোধী দলীয় নেতা ওউসমানে সোনকোকে গ্রেপ্তারের চেষ্টার জেরে সরকারের বিরুদ্ধে ক্ষোভ ছড়িয়ে পড়ে।

এসবের পরিপ্রেক্ষিতে সেনেগালে দাঙ্গা ছড়িয়ে পড়ে। সংঘাত প্রাণঘাতী রূপ নেয়। সশস্ত্র ও মুখোশধারী হামলাকারীদের হাতে নিহত হন বহু মানুষ। আহত হন শত শত। সেনেগালের বিরোধী দল ও নাগরিক সমাজ মনে করে, ওই হামলাকারীদের পেছনে ছিল ক্ষমতাসীন দল।

২০১৪ সালে সোনকো পিএএসটিইএফ নামে একটি রাজনৈতিক দল গড়ে তোলেন। সরকারের মধ্য পর্যায়ের কর্মকর্তাদের নজর কেড়েছিল এই দলটি। উর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের অর্থ লোপাট এবং অপরাধ করেও দায়মুক্তির বিষয়গুলো দেখে একেবারেই হতাশ হয়ে পড়েছিলেন তাঁরা। নিজেদের ক্ষমতাহীনও মনে করতেন।

 

খুলনা গেজেট/এইচ




আরও সংবাদ

খুলনা গেজেটের app পেতে ক্লিক করুন

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

© 2020 khulnagazette all rights reserved

Developed By: Khulna IT, 01711903692

Don`t copy text!