খুলনা, বাংলাদেশ | ২৫ শ্রাবণ, ১৪২৯ | ৯ আগস্ট, ২০২২

Breaking News

  গত ২৪ ঘণ্টায় সারা বিশ্বে করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন ১ হাজার ২২৭ জন ও ভাইরাসটিতে নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন ৪ লাখ ৮৪ হাজার ৫৪৭ জন
আলোচনা সভায় বাবুল রানা

শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বিজয় আসা মানেই বাংলাদেশের উন্নয়ন ও অগ্রগতি

নিজস্ব প্রতিবেদক

মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এম ডি এ বাবুল রানা বলেছেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সুযোগ্য তনয়া প্রধানমন্ত্রী দেশরতœ জননেত্রী শেখ হাসিনা মুক্ত হয়েছিলেন বলেই দেশ গণতন্ত্র ও উন্নত হয়েছে। সেদিন থেকেই পুনরায় শুরু হয় অন্ধকার থেকে আলোর পথের যাত্রা। সারাদেশে আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মী এবং দেশি বিদেশিদের চাপে তৎকালীন ১/১১ সরকার বাংলার ১৮ কোটি মানুষের অভিভাবক শেখ হাসিনাকে মুক্তি দিতে বাধ্য হয়েছিলো। তিনি মুক্তি পেয়েই সারাদেশের নেতাকর্মীদের নিয়ে নির্বাচনের জন্য প্রস্তুতি নেন। নির্বাচনে সংখ্যাগরিষ্ঠ আসনে আওয়ামী লীগ তথা মহাজোট জয়লাভ করে শেখ হাসিনার নেতৃত্বে সরকার গঠিত হয়। শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বিজয় আসা মানেই বাংলাদেশের উন্নয়ন ও অগ্রগতি। সকল প্রতিকূলতা ও ষড়যন্ত্রকে উপেক্ষা করে শুরু হয় শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশকে এগিয়ে নেয়ার বিপ্লব। তারই ধারাবাহিকতায় শেখ হাসিনা নিজস্ব অর্থায়নে পদ্মা সেতু নির্মান করেছেন। পদ্মা সেতু আজ শুধুই একটি পারাপারের সেতু নয়; এটি এখন বাংলাদেশের আত্মমর্যাদাকে আরো বৃদ্ধি করেছে। সেকারইে আজ বাংলাদেশ বিশ্বে মর্যাদার আসনে অবস্থান করছে। তিনি দলীয় নেতাকর্মীদের উদ্দেশ্যে বলেন, ষড়যন্ত্রকারীরা বসে নেই, তাদেরকে প্রতিহত করতে সকলকে ঐক্যবদ্ধ হতে হবে। আসুন সকলে ঐক্যবদ্ধ হয়ে দেশবিরোধীদের প্রতিহত করে শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশকে উন্নত বিশ্বের কাতারে দাঁড় করাই।

শনিবার সন্ধ্যা ৭টায় দলীয় কার্যালয়ে মহানগর আওয়ামী লীগ আয়োজিত প্রধানমন্ত্রী দেশরতœ জননেত্রী শেখ হাসিনার কারামুক্তি দিবসের আলোচনা সভায় সভাপতির বক্তৃতায় তিনি এসব কথা বলেন। এসময়ে অন্যান্যের মধ্যে বক্তৃতা করেন মহানগর আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি মুক্তিযোদ্ধা শ্যামল সিংহ রায়, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক জামাল উদ্দিন বাচ্চু, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক কাউন্সিলর শামছুজ্জামান মিয়া স্বপন, মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক সম্পাদক মুক্তিযোদ্ধা মাকসুদ আলম খাজা, উপ-প্রচার ও প্রকাশনা বিষয়ক সম্পাদক মো. মফিদুল ইসলাম টুটুল, নির্বাহী সদস্য এস এম আকিল উদ্দিন, মহানগর যুব লীগের আহ্বায়ক মো. সফিকুর রহমান পলাশ, মহানগর কৃষক লীগের আহবায়ক এ্যাড. এ কে এম শাহজাহান কচি, মহানগর স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি এম এ নাছিম, মহানগর ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক এস এম আসাদুজ্জামান রাসেল।

মহানগর আওয়ামী লীগের দপ্তর সম্পাদক মো. মুন্সি মাহবুব আলম সোহাগের পরিচালনায় এসময়ে উপস্থিত ছিলেন আওয়ামী লীগ নেতা অধ্যক্ষ শহিদুল হক মিন্টু, বীর মুক্তিযোদ্ধা অধ্যা. আলমগীর কবির, মো. শাহজাদা, এ্যাড. অলোকা নন্দা দাস, কামরুল ইসলাম বাবলু, হাফেজ মো. শামীম, শেখ নুর মোহাম্মদ, মোজাম্মেল হক হাওলাদার, আজগর আলী মিন্টু, অধ্যা. রুনু বিথার, রনজিত কুমার ঘোষ, অধ্যা. এ বি এম আদেল মুকুল, মীর বরকত আলী, এ্যাড. রাবেয়া ওয়ালী করবী, আইরিন চৌধুরী নীপা, মো. আমির হোসেন, এ্যাড. এনামুল হক, চ. ম মজিবর রহমান, সরদার আব্দুল হালিম, শেখ হাসান ইফতেখার চালু, মীর মো. লিটন, মো. রুহুল আমিন, ফয়জুল ইসলাম টিটো, মো. সিহাব উদ্দিন, মো. সেলিম মুন্সি, মল্লিক নওশের আলী, মো. নাহিদ মুন্সি, গোপাল সাহা, সবনম সাবা, জেসমিন সুলতানা শম্পা, নাসরিন ইসলাম তন্দ্রা, রোজী ইসলাম নদী, আব্দুল কাদের, শওকত হোসেন, অভিজিৎ চক্রবর্তী দেবু, নজিবুল ইসলাম নজিব, গোলাম মোর্ত্তুজা, খাদিজা কবির তুলি, জিলহজ্জ হাওলাদার, মো. শহীদুল হাসান, জহির আব্বাস, মাসুদ হাসান সোহান, সংকর কুন্ডুসহ আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠনের নেতৃবৃন্দ।

আলোচনা সভা শেষে প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা এমপি‘র দীর্ঘায়ু কামনা করে দোয়া অনুষ্ঠিত হয়। দোয়া পরিচালনা করেন হাফেজ আব্দুর রহীম।




আরও সংবাদ

খুলনা গেজেটের app পেতে ক্লিক করুন

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

© 2020 khulnagazette all rights reserved

Developed By: Khulna IT, 01711903692