খুলনা, বাংলাদেশ | ২৯ আষাঢ়, ১৪৩১ | ১৩ জুলাই, ২০২৪

Breaking News

  কুষ্টিয়ায় সেপটিক ট্যাংকে নেমে প্রাণ গেল ২ রাজমিস্ত্রির
  পঞ্চম বর্ষে পা রাখলো ‘খুলনা গেজেট ‘। প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে সকল পাঠক, বিজ্ঞাপনদাতা ও শুভানুধ্যায়ীদের শুভেচ্ছা।

নগর বিএনপিতে শৃঙ্খলা ভঙ্গ : শোকজ পেয়ে জবাব দিলেন তিননেতা

নিজস্ব প্রতিবেদক

খুলনায় তিন নেতাকে কারণ দর্শানোর নোটিশ দিয়েছিল মহানগর বিএনপি। দলীয় শৃঙ্খলা পরিপন্থী কাজের অভিযোগে তিন আগে তাদের নোটিশ দেওয়া হয়। তিন দিনের মধ্যে নোটিশের জবাবও দিয়ে ওই নেতারা। নোটিশপ্রাপ্তরা নেতারা হলেন মহানগর বিএনপির সদস্য খন্দকার হাসিনুল ইসলাম, মহানগর বিএনপির সদস্য ও ১৭ নং ওয়ার্ড বিএনপির আহবায়ক শেখ ফারুক হোসেন ও মহানগর বিএনপির সদস্য ও ১৬নং ওয়ার্ড বিএনপির যুগ্ম আহবায়ক তারিকুল ইসলাম তারিক।

তবে নগররের দায়িত্বশীল নেতারা এ নিয়ে কোন কথা বলতে চাননি।

অভিযোগ রয়েছে, বিএনপির এই তিন নেতা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে দলের শৃঙ্খলা পরিপন্থী বক্তব্য উপস্থাপন করেছে। এ কারণে তাদের কারণ দর্শাতে বলা হয়েছে। মহানগর বিএনপির সদস্য সচিব শফিকুল আলম তুহিন স্বাক্ষরিত চিঠিতে তাদের কারণ দর্শাতে বলা হয়।

কারল দর্শানো নোটিশে বলা হয়েছে মহানগর বিএনপির সদস্য ও ১৬নং ওয়ার্ড বিএনপির যুগ্ম আহবায়ক তারিকুল ইসলাম তারিক সোনাডাঙ্গা থানা বিএনপির কর্মী সভা পরবর্তী সদস্য সচিব পদে নির্বাচনে পরাজিত হয়ে দলের শীর্ষ নেতাদের বিরুদ্ধে বানোয়াট ও কল্পকাহিনী রটনা করে দলের র্শীষ নেতাদের ও নির্বাচন পরিচালনা কমিটিকে বিতর্কিত করার অপচেষ্টা করেছেন। একই অভিযোগ আনা হয়েছে মহানগর বিএনপির সদস্য খন্দকার হাসিনুল ইসলামের বিরুদ্ধে। তিনি সদর থানা বিএনপির সদস্য সচিব পদে নির্বাচন করে পরাজিত হয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে একই কর্মকান্ড পরিচালনা করেছেন। অপরজন মহানগর বিএনপির সদস্য ও ১৭নং ওয়ার্ড বিএনপির আহবায়ক শেখ ফারুক হোসেন সোনাডাঙ্গা থানা বিএনপির আহবায়ক পদে পরাজিত হয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে আপত্তিকর মন্তব্য করেছেন। এছাড়া ফারুক ৩ মে শহীদ রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের ৪২তম শাহাদাৎবার্ষিকীতে দলের সিদ্ধান্ত পরিপন্থি কর্মকান্ড পরিচালনা করেছেন। যা পরবর্তী সময়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়ে পড়ে। এসব কর্মকাণ্ডের মাধ্যমে তারা দলীয় শৃঙ্খলাভঙ্গ করেছেন। দলীয় শৃঙ্খলাভঙ্গের দায়ে কেন গঠনতন্ত্র অনুযায়ী শাস্তিমূলক ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে না তার সন্তোষজনক জবাব কারণ দর্শানোর নোটিশ প্রাপ্তির তিন দিনের মধ্যে মহানগর বিএনপির আহ্বায়ক/ সদস্য সচিব বরাবর লিখিতভাবে জানাতে হবে। ব্যর্থতায় তাদের বিরুদ্ধে দলীয় শৃঙ্খলাভঙ্গের দায়ে গঠনতন্ত্র অনুযায়ী ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

তবে নির্ধারিত সময়ের মধ্যে ওই নেতারা জবাব দিয়েছেন বলে নিশ্চিত হওয়া গেছে।

খুলনা গেজেট/কেডি




আরও সংবাদ

খুলনা গেজেটের app পেতে ক্লিক করুন

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

© 2020 khulnagazette all rights reserved

Developed By: Khulna IT, 01711903692

Don`t copy text!