খুলনা, বাংলাদেশ | ১০ আষাঢ়, ১৪৩১ | ২৪ জুন, ২০২৪

Breaking News

  নাটোরে পৃথক সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ২
  রাজনীতি থেকে সরাতেই বিদেশে চিকিৎসার সুযোগ দেয়া হচ্ছে না : ফখরুল
  বিদ্যমান আইনে খালেদা জিয়াকে বিদেশ পাঠানোর সুযোগ নেই, হৃদযন্ত্রে পেস মেকার বসানোর কাজ চলছে : আইনমন্ত্রী

তিন শিশুকে পুড়িয়ে হত্যার দায়ে আসামির মৃত্যুদণ্ড

গেজেট ডেস্ক

ঝিনাইদহের শৈলকুপায় তিন শিশুকে পুড়িয়ে হত্যা মামলার একমাত্র আসামি ইকবাল হোসেনকে মৃত্যুদণ্ড দিয়েছেন আদালত। বুধবার (১৫ মার্চ) দুপুরে ঝিনাইদহ জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিচারক মো. নাজিমুদ্দৌলা এ দণ্ডাদেশ দেন। একই সঙ্গে তাকে তিন লাখ টাকা জরিমানা করা হয়েছে।

মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত ইকবাল হোসেন শৈলকুপা উপজেলার কবিরপুর গ্রামের মো. গোলাম নবীর ছেলে। বর্তমানে তিনি পলাতক রয়েছেন।

মামলার বিবরণে জানা যায়, শৈলকুপার কবিরপুর গ্রামের ইকবালের সঙ্গে তার বাবা গোলাম নবীর টাকা লেনদেন নিয়ে বিরোধ হয়। এরই জের ধরে ২০১৬ সালের ৩ জানুয়ারি সন্ধ্যায় ইকবাল কার্টন দেখানোর কথা বলে নিজের ঘরে ভাতিজা সাফিন, আমিন ও ভাগ্নে মাহিনকে ডেকে নেন। এরপর তাদের হাতুড়ি দিয়ে পিটিয়ে গুরুতর আহত করে গ্যাসের সিলিন্ডার খুলে আগুন ধরিয়ে দেন। এতে ঘটনাস্থলেই সাফিন ও আমিন দগ্ধ হয়ে মারা যায়। পরে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ভাগ্নে মাহিনও মারা যায়। এ ঘটনায় সাফিন ও আমিনের বাবা দেলোয়ার বাদী হয়ে শৈলকুপা থানায় মামলা দায়ের করেন। তদন্ত শেষে পুলিশ ওই বছরের ১৭ ফেব্রুয়ারি ইকবালকে অভিযুক্ত করে চার্জশিট দাখিল করে। দীর্ঘ বিচারিক প্রক্রিয়া শেষে আদালত ওই মামলায় একমাত্র আসামি ইকবালকে মৃত্যুদণ্ড ও তিন লাখ টাকা জরিমানার আদেশ দেন। আসামি বর্তমানে পলাতক রয়েছেন।

নিহতদের স্বজন সাইফুল ইসলাম জানান, ছোট ছোট বাচ্চাদের কোনো অপরাধ ছিলো না। ওদের বাবার সঙ্গে আসামির কোনো রকম দ্বন্দ্ব ছিলো না। তারপরও তাদেরকে ফুঁসলিয়ে ঘরের ভেতর নিয়ে হাতুড়ি দিয়ে মেরে আগুনে পুড়িয়ে নির্মমভাবে হত্যা করে। আদালত যে রায় দিয়েছে এই রায়ে আমাদের পরিবার সন্তুষ্ট।

রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী (পিপি) ইসলাম হোসেন বলেন, আসামি ইকবাল ঘরের ভেতর নিষ্পাপ তিনটি শিশুকে নির্মমভাবে হত্যা করে। হত্যার পর আসামির বিচারেরর দাবিতে শৈলকুপাসহ বিভিন্ন জায়গায় মানববন্ধন করে শিশুদের স্বজনেরা। আজ জেলা ও দায়রা জজ আদালত আসামির মৃত্যুদণ্ডের রায় দিয়েছেন। এতে আমরা সন্তুষ্ট।

খুলনা গেজেট/ এসজেড




আরও সংবাদ

খুলনা গেজেটের app পেতে ক্লিক করুন

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

© 2020 khulnagazette all rights reserved

Developed By: Khulna IT, 01711903692

Don`t copy text!