খুলনা, বাংলাদেশ | ২৯ আষাঢ়, ১৪৩১ | ১৩ জুলাই, ২০২৪

Breaking News

  কুষ্টিয়ায় সেপটিক ট্যাংকে নেমে প্রাণ গেল ২ রাজমিস্ত্রির
  পঞ্চম বর্ষে পা রাখলো ‘খুলনা গেজেট ‘। প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে সকল পাঠক, বিজ্ঞাপনদাতা ও শুভানুধ্যায়ীদের শুভেচ্ছা।

জীবননগরে ইবনে সিনা ক্লিনিকের বিরুদ্ধে ভুল অস্ত্রপাচারের অভিযোগ

জীবননগর প্রতিনিধি

চুয়াডাঙ্গার জীবননগরে ইবনে সিনা ক্লিনিক এন্ড ডায়াগনস্টিক সেন্টারের বিরুদ্ধে নওয়াজেস হোসেন (৪৮) নামের এক রোগীর ভুল অস্ত্রপচারের অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় গতকাল মঙ্গলবার দুপুরে থানায় অভিযোগ করেছেন নওয়াজেস হোসেনের ভাই মো. মোস্তফা মোস্ত (৪৫)। বর্তমানে নওয়াজেসের অবস্থা আশঙ্কাজনক। তিনি ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি রয়েছেন।

অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে, গত ৭ সেপ্টেম্বর উপজেলার কাশিপুর দক্ষিণপাড়ার নওয়াজেস হোসেন (৪৮) জীবননগরে ইবনে সিনা ক্লিনিকে হার্নিয়া রোগ নিয়ে ভর্তি হন। একই গ্রামের পল্লি চিকিৎসক কায়দার আলী তাদের ইবনে সিনা ক্লিনিকে নিয়ে যান। ক্লিনিকের মালিক আব্দুল জব্বার বিভিন্ন পরীক্ষা করার পর বলেন হার্নিয়ার অস্ত্রপচার করতে হবে। সেই দিন রাত ৮টার দিকে নওয়াজেস হোসেনের ভুল অস্ত্রপচার করা হয়। এরপর থেকে তার শারীরিক অবস্থার অবনতি হতে থাকে। একপর্যায়ে তাকে চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানেও তার অবস্থার অবনতি হলে তাকে গত ২১ তারিখে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানকার চিকিৎসক পরীক্ষা-নিরিক্ষার পর জানায় তার ভুল অস্ত্রপচার করা হয়েছিল। বর্তমানে তাকে আইসিইউতে রাখতে হচ্ছে। পিলাস্টিকের নাড়ীর মাধ্যমে তিনি বাথরুম করছেন।

ইবনে সিনা ক্লিনিকের কর্মচারী আব্দুল জব্বার দাবি করেন, কোনো ভুল অস্ত্রপচার করা হয়নি। জীবননগর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের সাবেক স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা অফিসার নুুপুর নওয়াজেস হোসেনের হার্নিয়ার অস্ত্রপচার করেছেন। রোগীর অবস্থা ভালোই ছিল। তবে তারা চিকিৎসকের নির্দেশনা মানেনি। শুধু এক জায়গা থেকে আরেক জায়গায় ঘুরছে।

 জীবননগর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের সাবেক স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা অফিসার নুপুর বলেন, কোনো ভুল অস্ত্রপচার করা হয়নি। সঠিক অস্ত্রপচার করা হয়েছে। অস্ত্রপচারের পর রোগীর কেউ তার সঙ্গে যোগাযোগ করেনি।

জীবননগর থানার উপ-পরিদর্শক মাহাবুব হাসান বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, অভিযোগ পাওয়ার পর ক্লিনিকে গিয়েছিলাম। এবিষয়ে ক্লিনিক কর্তৃপক্ষ ও ভুক্তভোগী পরিবার বসে নিজেরা সমাধান করবে বলে আমাকে জানান।

খুলনা গেজেট/কেডি




খুলনা গেজেটের app পেতে ক্লিক করুন

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

© 2020 khulnagazette all rights reserved

Developed By: Khulna IT, 01711903692

Don`t copy text!