খুলনা, বাংলাদেশ | ২ মাঘ, ১৪২৮ | ১৬ জানুয়ারি, ২০২২

Breaking News

  করোনার সংক্রমণ বাড়লেও এখনও শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধের সিদ্ধান্ত হয়নি : শিক্ষামন্ত্রী
  করোনার কারণে দুই সপ্তাহ পিছিয়ে ১৫ ফেব্রুয়ারি থেকে শুরু অমর একুশে গ্রন্থমেলা

খুলনার মধুর স্মৃতি খুব টানে!

বিনোদন ডেস্ক

বাবার চাকরিসূত্রে ২০০৩ থেকে ২০০৬ সাল পর্যন্ত খুলনায় কেটেছিল তাঁর। খুলনা শিল্পকলা একাডেমিতেই প্রথম গান, নাচ, অভিনয় আর আবৃত্তির প্রশিক্ষণ নিয়েছিলেন অভিনেত্রী ও উপস্থাপক জাহারা মিতু। প্রায় ১৫ বছর পর গত বুধবার সেই শিল্পকলা একাডেমির আঙিনায় গেলেন তিনি। এনটিভি আয়োজিত ‘হা-শো’ নামে একটি কমেডি রিয়েলিটি শোর বিচারক হয়ে। শো শেষ করে ঢাকায় ফিরে বৃহস্পতিবার দুপুরে স্মৃতিবিজড়িত শিল্পকলা ও জীবনে প্রথম বিচারক হওয়ার উপলব্ধির কথা নিয়ে ফেসবুকে আবেগঘন একটি স্ট্যাটাস দিয়েছেন এই অভিনেত্রী।

স্ট্যাটাসে তিনি লিখেছেন, ‘শিশুশিল্পী হিসেবে আমার জীবনের প্রথম পারফরম্যান্স খুলনা শিল্পকলা একাডেমিতে। এত বছর পর আজ সেখানেই বিচারকের আসনে।’ নিজের উপস্থাপনা–জীবনের শুরুর স্মৃতিচারণা করে স্ট্যাটাসের আরেক অংশে মিতু লিখেছেন, ‘একসময় এনটিভির পর্দায় জীবনের প্রথম উপস্থাপনা। একদম আনকোরা, অনভিজ্ঞ একটি মেয়ের ওপর তাদের আস্থা ছিল। সেই থেকে তাদের শোতেই আমার আজকের অবস্থান। বিচারক। আহা জীবন।’

জাহারা মিতুর সঙ্গে এ বিষয়ে কথা হয়। নিজের অনুভূতি জানিয়ে তিনি বলেন, ‘কী যে ভালো লাগছে!

কত স্মৃতি এই প্রতিষ্ঠান ঘিরে। প্রত্যেক মানুষের সংস্কৃতিচর্চার একটা শুরু থাকে। আমার শুরুটা যদিও পরিবার থেকে হয়েছে, তারপরও প্রাতিষ্ঠানিকভাবে খুলনা থেকেই হয়েছে। তখন আমি বিভাগীয় কিংবা জেলা পর্যায়ের ছবি আঁকা, নাচ, গান, বিভিন্ন ধরনের প্রতিযোগিতায় অংশ নিতাম। প্রতিযোগিতাগুলো বেশির ভাগ সময় শিল্পকলাতেই হতো। এখন ছোটবেলায় যখন ফিরে যাই, তখন খুলনার মধুর স্মৃতি খুব টানে! সে এক দিন ছিল আমার!’

তিনি বলেন, ‘আজ মানুষ আমাকে যতটুকু জেনেছেন, চিনেছেন এবং আমি যে রাস্তায় হাঁটছি, সেই পথ শুরু হয়েছিল খুলনার শিল্পকলাতেই।’ এই অভিনেত্রী বলেন, ‘জীবন চলতে থাকে জীবনের মতো, সময় যেতে থাকে সময়ের মতো। তবে নিজ কর্মগুণে গতকাল থেকে আজ এবং আগামীকে ভালো অবস্থানে নিয়ে যাওয়াটাই বেঁচে থাকার সার্থকতা। এখন যে কাজ করছি, তা থেকে ইতিবাচক শক্তি পাচ্ছি আমি। যে রাস্তায় হাঁটছি, সেটা আমার মনে হয় সঠিক। গতকালের অডিশনটা আমাকে বেশি পজিটিভ এনার্জি দিয়েছে।’

 

খুলনা গেজেট/এএ




খুলনা গেজেটের app পেতে ক্লিক করুন

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

© 2020 khulnagazette all rights reserved

Developed By: Khulna IT, 01711903692