খুলনা, বাংলাদেশ | ২ মাঘ, ১৪২৮ | ১৬ জানুয়ারি, ২০২২

Breaking News

  করোনার সংক্রমণ বাড়লেও এখনও শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধের সিদ্ধান্ত হয়নি : শিক্ষামন্ত্রী
  করোনার কারণে দুই সপ্তাহ পিছিয়ে ১৫ ফেব্রুয়ারি থেকে শুরু অমর একুশে গ্রন্থমেলা

সাতক্ষীরায় মটর সাইকেল চুরির হিড়িক

নিজস্ব প্রতিবেদক, সাতক্ষীরা

সাতক্ষীরায় মটরসাইকেল চুরির হিড়িক পড়েছে। প্রায়ই সাতক্ষীরা শহরের কোন না কোন স্থান থেকে মটরসাইকেল চুরির ঘটনা ঘটছে। গত কয়েকদিনে সাতক্ষীরা শহরের বিভিন্ন স্থান থেকে শিক্ষক, মিস্ত্রি, ব্যবসায়ীসহ অনেকেই তাদের মটরসাইকেল হারিয়েছেন।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, গত ১৪ ডিসেম্বর সাতক্ষীরা জজকোর্ট চত্বরে মটরসাইকেল রেখে এজি অফিসে প্রয়োজনে যান কুমিরা মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক শফিকুল ইসলাম। ফিরে এসে তিনি তার মটর সাইকেল আর খুঁজে পাননি। তিনি সদর উপজেলার ব্রহ্মরাজপুর ইউনিয়নের দামারপোতা গ্রামের অজিয়ার রহমান গাইনের ছেলে। এর কয়েকদিন পর একই এলাকা থেকে মটর সাইকেল খোয়ান কাটিয়া এলাকার সাবেক অধ্যাপক কামাল উদ্দিনের শ্যালক খোকন।

গত ৫ জানুয়ারি তালতলা মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের সহকারী প্রধান শিক্ষক আশরাফুর রহমান সংগ্রাম হাসপাতালের সামনে নিজ বাড়ির নিচ তলা থেকে তার ব্যবহৃত ফিজার মটর সাইকেল চুরি হয়। ওইদিন দুপুরে তিনি বাড়ির নিচতলায় মটরসাইকেল রেখে ছিলেন। কিছুক্ষণ পরে এসে আর মটরসাইকেল খুঁজে না পেয়ে থানায় সাধারণ ডায়েরি করেন।

১০ জানুয়ারি সাতক্ষীরা শহরের পলাশপোল তেতুলতলা এলাকা থেকে রাজমিস্ত্রি আনারুল ইসলাম এর একটি ডিসকভার ১২৫ মটরসাইকেল চুরি হয়। মটরসাইকেলের মালিক রাস্তায় মটরসাইকেল রেখে কাজ করছিলেন। এ সময় অজ্ঞাত চোর গাড়ীটি চুরি করে নিয়ে যায়।

এছাড়াও শহরের বিভিন্ন স্থান থেকে মটরসাইকেল চুরির বিষয়ে গণমাধ্যমকর্মীদের জানানো হয়েছে। ফলে সাতক্ষীরা শহরের এখন মটরসাইকেল চোর আতংক বিরাজ করছে। কেউ মটরসাইকেল রেখে নিশ্চিন্তে তার প্রয়োজন মিটাতে পারছেন না। শহরে কাজে এসে সবসময় উদ্বেগ উৎকণ্ঠার মধ্যে কাটাচ্ছেন মটরসাইকেল মালিকরা।

এদিকে সম্প্রতি সাতক্ষীরা শহর জুড়ে গড়ে ওঠেছে পুরাতন মটরসাইকেল বেশ কয়েকটি শো রুম। এসব পুরাতন মটর সাইকলে শো রুমের মালিকদের কয়েকজন অনেক সময় কাগজপত্র না থাকা মটর সাইকেল ক্রয় ও বিক্রি করে থাকেন। এসব মালিকদের বিষয়ে খোজ নেওয়ার জন্য প্রশাসনের কাছে অনুরোধ জানিয়েছেন অনেকে।

সাতক্ষীরা শহরের পলাশপোল গ্রামের শফিকুল ইসলাম ও ইটাগাছা গ্রামের কবিরুল ইসলাম বলেন, সম্প্রতি শহরের ব্যঙের ছাতার মত গজিয়ে উঠেছে পুরাতন মটরসাইকেল শোরুম। এগুলোর বিষয়ে এখন খোঁজ নেওয়া জরুরি হয়ে উঠেছে।

সাতক্ষীরা সদর থানার নবাগত অফিসার ইনচার্জ (ওসি) গোলাম কবির বলেন, মটরসাইকেল চুরির সাথে একটি সিন্ডিকেট জড়িত রয়েছে। অন্য কোন জেলা থেকে এসব সংঘবদ্ধ চোরেরা অপরাধ সংঘটিত করে চলে যায়। আমি যেহেতু নতুন আসছি। এবিষয় খোঁজ খবর নিয়ে দ্রুত আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণের পদক্ষেপ নিব।




আরও সংবাদ

খুলনা গেজেটের app পেতে ক্লিক করুন

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

© 2020 khulnagazette all rights reserved

Developed By: Khulna IT, 01711903692