খুলনা, বাংলাদেশ | ৩১ শ্রাবণ, ১৪২৯ | ১৫ আগস্ট, ২০২২

Breaking News

  দেশে ডলারের বাজার স্থিতিশীল করতে বাণিজ্যিক ব্যাংকগুলোকে আন্তঃব্যাংক ডলার বেচাকেনার নির্দেশ দিয়েছে বাংলাদেশ ব্যাংক
  গুম বলে আমাদের দেশে কোনো শব্দ নেই : পররাষ্ট্রমন্ত্রী

শ্লীলতাহানী মামলায় এ্যাসেনসিয়াল ড্রাগের শফিকুলের জামিন বাতিল

ফুলবাড়ীগেট প্রতিনিধি

খুলনা এ্যাসেনসিয়াল ড্রাগস লিমিটেড (ইডিসিএল) এর সাবেক ডিজিএম (এডমিন) ও বর্তমানে বগুড়া এ্যাসেনসিয়াল ড্রাগস লিমিটেড এর ষ্টোর ম্যানেজার মোঃ শফিকুল ইসলাম বারীর বিরুদ্ধে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে করা মামলায় তার জামিন বাতিল করে জেল হাজতে প্রেরণ করেছে আদালত।

খুলনা মেট্রোপলিটন ম্যাজিষ্টেট এর ২ নং আদালত এর বিচারক মোঃ আলামিন গত ১২ জুন দুপুরে এ আদেশ দেন। এ আগে গত ৩১ মার্চ মামলার তদন্ত কর্মকর্তা এসআই রেজোয়ানুল ইসলাম আদালতে এ মামলার চার্জশিট দেন।

খুলনা এ্যাসেনসিয়াল ড্রাগসের ভান্ডার বিভাগের নারী কর্মী শ্রাবনী কেয়া (২৬) বাদী হয়ে গত ২২ ফেব্রুয়ারি নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইন, ২০০০(সংশোধিত ২০০৩) খানজাহান আলী থানায় মামলা দায়ের করেন, যার নং ১৩। গত ২৪ ফেব্রুয়ারি আসামিকে গোপালগঞ্জ এর মুকসুদপুর থানার দক্ষিণ চন্ডিবর্দি, গ্রামের নিজ বাড়ি থেকে আটক করে খানজাহান আলী থানা পুলিশ ।

আদালতে দায়েরকৃত অভিযোগপত্রের সুত্রে জানা যায়, মামলার বাদী ২০১৯ সালের ৬ ফেব্রুয়ারি খুলনার মাত্তমডাঙ্গাস্থ এ্যাসেনসিয়াল ল্যাটেক্স প্লান্ট, উৎপাদন (শ্রমিক) পদে যোগদান করেন। ১ বছর পূর্বে মোঃ শফিকুল বারী ডিজিএম (এডমিন) হিসাবে বগুড়া অফিস থেকে খুলনা এ্যাসেনসিয়াল ল্যাটেক্স প্লান্টে যোগদান করেন। প্রতিষ্ঠানে চাকরিকালীন মোঃ শফিকুল বারী বিভিন্ন কাজের অজুহাতে বাদীর কাছে আসতো এবং কাজের ক্ষেত্রে অফিসের বিভিন্ন স্থানে দেখা হলে বাদীকে কুপ্রস্তাবব দিত। বাদী তাকে সবসময় এড়িয়ে চলতো। গত ১ ফেব্রুয়ারি (মঙ্গলবার) দুপুর ১২টায় বাদী উক্ত প্রতিষ্ঠানের ভান্ডার বিভাগে ষ্টেশনারী শাখায় কাজ করছিলেন। হাতের কাজ শেষ করে বাদী ওয়াশ রুমে যাওয়ার সময় ভান্ডার বিভাগে ষ্টেশনারী শাখার কাছ থেকে আসামি বাদীকে দেখামাত্র ডাক দিয়ে, বিভিন্ন অশ্লীল কথাবার্তা বলার একপর্যায়ে একা পেয়ে সামনে থেকে জাপটে ধরে এবং বাদীর শরীরের বিভিন্ন স্পর্শকাতর স্থানে শ্লীলতাহানী করে।

এ ঘটনায় ঢাকা হেড অফিসের জি এম ইজ্ঞিনিয়ারিং মাহবুব হোসেনকে প্রধান করে ৩ সদস্যের একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছিলো অধিকতর তদন্তেরর পর তদন্ত কমিটি শ্লীলতাহানী করার ঘটনার সত্যতা পায় এবং অভিযুক্ত শফিউল বারিকে ডিমোশন দিয়ে ডিজিএম এডমিন থেকে (ষ্টোর ম্যানেজার )হিসেবে গত ১২ মে এক অফিস আদেশে খুলনা থেকে বগুড়াতে বদলি করে। গত ১২ জুন (রবিবার) আসামি আদালতে হাজিরা দিতে আসলে বিজ্ঞ আদালত দীর্ঘক্ষণ মামলার বাদির বক্তব্য শোনেন এবং আসামিকে জেল হাজতে প্রেরণের নির্দেশ দেন।

খুলনা গেজেট/ এস আই




আরও সংবাদ

খুলনা গেজেটের app পেতে ক্লিক করুন

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

© 2020 khulnagazette all rights reserved

Developed By: Khulna IT, 01711903692