খুলনা, বাংলাদেশ | ৯ অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ | ২৪ নভেম্বর, ২০২০

Breaking News

  রাজধানীর মহাখালীতে সাততলা বস্তিতে আগুন, নিয়ন্ত্রণের কাজ করছে ফায়ার সার্ভিস
  কঠোর হচ্ছে সরকার, মাস্ক না পরলে জরিমানা ৫ হাজার টাকা
  গণমাধ্যমকর্মীরা করোনাকালের নির্ভীক যোদ্ধা : তথ্যমন্ত্রী
  দেশে করোনাভাইরাসে ২৮ মৃত্যু, শনাক্ত ২৪১৯
  অক্সফোর্ডের টিকা সুরক্ষা দিতে পারে ৭০ শতাংশ

ফেরাটা জয় দিয়ে রাঙাতে চান জেমি ডে

ক্রীড়া প্রতিবেদক

গত জানুয়ারিতে ঢাকায় বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপে বুরুন্ডির বিপক্ষে সর্বশেষ আন্তর্জাতিক ম্যাচ খেলেছিল বাংলাদেশ ফুটবল দল। এরপর মার্চে বিশ্বকাপ ও এশিয়ান কাপের যৌথ বাছাইয়ের ম্যাচ থাকলেও করোনাভাইরাসের কারণে তা স্থগিত হয়ে যায়। অবশেষে আগামী মাসে ঢাকায় নেপালের বিপক্ষে আন্তর্জাতিক প্রীতি ম্যাচ দিয়ে মাঠে ফিরতে যাচ্ছেন জামাল ভূঁইয়ারা।

বঙ্গবন্ধু স্টেডিয়ামে ম্যাচ দুটি হবে ১৩ ও ১৭ নভেম্বর। ম্যাচ সংক্রান্ত বিষয় নিয়ে আজ অনলাইনে সংবাদ সম্মেলন করেছে বাফুফের জাতীয় দল কমিটি। কমিটির চেয়ারম্যান ও বাফুফের সহসভাপতি কাজী নাবিল আহমেদ ছাড়াও ইংল্যান্ড থেকে যোগ দেন জাতীয় দলের প্রধান কোচ জেমি ডে ও সহকারী কোচ স্টুয়ার্ট ওয়াটকিস। সংবাদ সম্মেলনে জানানা হয়েছে, ২৩ সেপ্টেম্বর ঢাকার একটি পাঁচ তারকা হোটেলে শুরু হবে বাংলাদেশের আবাসিক ক্যাম্প। শুরুর পাঁচ দিন পর ২৯ সেপ্টেম্বর ঢাকায় আসবেন কোচ জেমি। একই দিনে অধিনায়ক জামাল ভূঁইয়াকেও পাওয়ার আশা করছে বাফুফে। যিনি ডেনমার্ক থেকে ফিরবেন। বাংলাদেশ দল অনুশীলন করবে বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়াম ও নেপাল শেখ জামাল ধানমন্ডি ক্লাব মাঠে। দুই দলের জন্য রাখা হয়েছে কমলাপুর শহীদ সিপাহী মোস্তফা কামাল স্টেডিয়ামও।

‘খেলোয়াড়েরা অনেক দিন খেলার বাইরে আছে। ২০ দিন সময়ের মধ্যে আগের অবস্থানে ফিরে আসাটা কঠিন। তবে আমাদের সর্বোচ্চ চেষ্টা করতে হবে।’ জানুয়ারি থেকে বন্ধ আছে আন্তর্জাতিক ফুটবল। মার্চ থেকে স্থগিত বাংলাদেশের ঘরোয়া ফুটবল। সুতরাং অনেক দিন বাদে ফিরতে যাচ্ছে ফুটবল। ফেরাটা জয় দিয়ে রাঙাতে চান জাতীয় দলের কোচ জেমি। তাঁর কথা, ‘অনেক দিন বিরতির পর বাংলাদেশে ফুটবল ফিরতে চাইছে। অবশ্যই জয় দিয়ে ফিরতে চাইব। তবে জয়টায় সবকিছু নয়। ফুটবলের ফেরাটাও গুরুত্ব আছে।’

নেপাল ম্যাচের আগে প্রস্তুতির জন্য ২০ দিন সময় পাচ্ছেন জেমি। সময়টা যথেষ্ট নয়। তবে বাস্তবতা মেনে সর্বোচ্চ চেষ্টার কথাই বলছেন জেমি, ‘খেলোয়াড়েরা অনেক দিন খেলার বাইরে আছে। ২০ দিন সময়ের মধ্যে আগের অবস্থানে ফিরে আসাটা কঠিন। তবে আমাদের সর্বোচ্চ চেষ্টা করতে হবে।’

বাংলাদেশের খেলোয়াড়েরা নিজ উদ্যোগে করোনা পরীক্ষা করে আসবেন ক্যাম্পে। তারপর বাফুফের উদ্যোগে একবার পরীক্ষা হবে। ম্যাচের ৭২ ঘণ্টা আগে আবার পরীক্ষা করাবে বাফুফে। নেপালের জন্যও অনুসরণ করা হবে একই নিয়ম। করোনা পরীক্ষা করিয়ে ঢাকা আসার পরও তাদের আরেক দফার পরীক্ষা হবে। ঢাকায় নেপাল দলের কোয়ারেন্টিন পর্বটি কীভাবে হবে, তা চূড়ান্ত হওয়ার কথা ২৫ অক্টোবর আন্তমন্ত্রণালয় সভায়। ৫ অথবা ৭ নভেম্বর ঢাকায় আসার কথা জানিয়েছে অল নেপাল ফুটবল অ্যাসোসিয়েশন।

খুলনা গেজেট/এএমআর






খুলনা গেজেটের app পেতে ক্লিক করুন



এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

© 2020 khulnagazette all rights reserved

Developed By: Khulna IT, 01711903692