খুলনা, বাংলাদেশ | ২০ মাঘ, ১৪২৯ | ৩ ফেব্রুয়ারি, ২০২৩

Breaking News

  বিশ্বজুড়ে ২৪ ঘণ্টায় করোনায় মৃত্যু ১ হাজার ৩০০ জন, আক্রান্ত হয়েছেন ১ লাখ ৯৭ হাজার ১০৪ জন
  আইএমএফের ঋণের ৪৭৬ মিলিয়ন ডলারের প্রথম কিস্তি পেয়েছে বাংলাদেশ

খুলনার মানবাধিকার পরিস্থিতির প্রতিবেদন নিয়ে আলোচনা

নিজস্ব প্রতিবেদক

ইউএনডিপি এর মানবাধিকার কর্মসূচীর সহযোগিতায় ২০২২ সালের গত দশ মাসের মানবাধিকার পরিস্থিতি নিয়ে একটি খসড়া প্রতিবেদন প্রস্তুত করা হয়েছে। রবিবার সকাল ১০টায় নগরীর সিএসএস আভা সেন্টারে দলিত সংগঠনের আয়োজনে প্রশাসনের কর্মকর্তা, বিভিন্ন এনজিও এবং মিডিয়াকর্মীদের সামনে এই খসড়া প্রতিবেদনটি উপস্থাপন করা হয়।

প্রতিবেদনটিতে খুলনা জেলাবাসীর বাসস্থানের অধিকার, খাদ্যের অধিকার, স্বাস্থ্য অধিকার, নাগরিক ও রাজনৈতিক অধিকার, মত প্রকাশের স্বাধীনতার অধিকার, শ্রমিকদের অধিকার, প্রতিবন্ধী ব্যক্তির অধিকারসহ মানবাধিকারের বিভিন্ন বিষয় উল্লেখ করা হয়েছে। আলোচনায় মানবাধিকারের এসব বিষয়ে আলোচকদের কাছ থেকে সুপারিশমালা গ্রহণ করা হয়। আর এরই পরিপ্রেক্ষিতে পরবর্তীতে প্রতিবেদনটি চূড়ান্তভাবে প্রকাশ করা হবে বলে জানানো হয়েছে।

প্রতিবেদনটি সম্পাদনা করেছেন খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রফেসর ড. তাসনিয়া খাতুন, দলিত এর হেড অফ প্রোগ্রাম বিকাশ কুমার দাস এবং মনিটরিং অফিসার ইসরাত নূয়েরী হোসেন।

প্রতিবেদনটি প্রস্তুতে ১৫ সদস্যের একটি টেকনিক্যাল টিম কাজ করেছেন। তারা হচ্ছেন খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রফেসর ড. তাসনিয়া খাতুন, জাতীয় মানবাধিকার কমিশনের সহকারী পরিচালক জেসমিন সুলতানা তানি, সম্প্রীতি ফোরামের সভাপতি সিলভী হারুন, দলিত এর হেড অফ প্রোগ্রাম বিকাশ কুমার দাস, সম্প্রীতি ফোরাম এর সদস্য যথাক্রমে ইসরাত আরা হিরা, সাবির খান, এড. মোমিনুল ইসলাম, এড. মোজাহিদুল ইসলাম শামীম, সাংবাদিক আলমগীর হান্নান ও সালমা জাহান, ট্রান্সজেন্ডার স্পেশালিস্ট হিরন্ময় মন্ডল, দলিত এর মনিটরিং অফিসার ইসরাত নূয়েরী হোসেন, প্রতিভা সংস্থা’র গোলাপী দাস, পল্লী দলিত সংস্থা’র জয়ন্ত দাস এবং ক্লাইমেট চেঞ্জ স্পেশালিস্ট নিরঞ্জন বর্মন।

প্রতিবেদনটি প্রস্তুতে তথ্য সহযোগিতায় ছিল সম্প্রীতি ফোরাম, দলিত সংস্থা, খুলনা মেডিকেল কলেজ, প্রতিভা সংস্থা, পল্লী দলিত সংস্থা, খুলনা প্রেসক্লাব, খুলনা মুক্তি সেবা সংঘ, রূপসা সংস্থা, খুলনা জেলা পুলিশ সুপারের কার্যালয়, জেলা সমাজসেবা ও মহিলা বিষয়ক অধিদপ্তর, শ্রম ও কর্মসংস্থান অধিদপ্তর।

প্রতিবেদনটির উদ্দেশ্য হচ্ছে জেলার অপরাধ চিত্র প্রশাসনের নজরে নিয়ে আইন প্রয়োগের ক্ষেত্রে সক্রিয় করা; দরিদ্র মানুষের অধিকার বাস্তবায়নে এবং আইনী সহায়তার মাধ্যমে ন্যায় বিচার প্রাপ্তিতে সহায়তা করা; সর্বজনীন মানবাধিকারের ঘোষণা বাস্তবায়নে সরকারি সেবাদানকারী প্রতিষ্ঠান সমূহকে সক্রিয় রাখতে ভূমিকা রাখা; সুনির্দিষ্ট তথ্য সংগ্রহ করে মানবাধিকার রক্ষার্থে প্রতিবাদ ও জনমত গঠন করা; অপরাধীর শাস্তি নিশ্চিত করতে প্রশাসনকে সহযোগিতা করা এবং অপরাধ প্রবণতা হ্রাসকরণে জন উদ্যোগ গ্রহণের জন্য ঘটনার পরিসংখ্যান তুলে ধরা; সকল ধরনের নারী ও শিশু নির্যাতন বন্ধে যথাযথ সেবা সহায়তার মাধ্যমে ও সেবা প্রাপ্তির স্থান সম্প্রসারণ করা; নাগরিক অধিকার নিশ্চিত করনের অসহায় দরিদ্র মানুষের খাদ্য, বস্ত্র, বাসস্থান, শিক্ষা, বিনোদন, আইনী সহায়তায় ন্যায় বিচার ইত্যাদি সেবা প্রাপ্তিতে সরকারের সংশ্লিষ্ট বিভাগের স্বচ্ছতা ও জবাবদিহিতা নিশ্চিত করা; মানুষের সামাজিক, সাংস্কৃতিক, অর্থনৈতিক এবং রাজনৈতিক অধিকারের অবস্থা তুলে ধরে জনসচেতনতার পাশাপাশি নাগরিক সুবিধা নিশ্চিত করতে সরকারকে উদ্বুদ্ধ করা; জেলার অপরাধ এবং মানবাধিকার লংঘনের ঘটনা শুন্যের কোঠায় নামিয়ে নিতে ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য প্রস্তাবনা তুলে ধরা; অধিকারের সঠিক বাস্তবায়নের ক্ষেত্রে রাষ্ট্রীয় পদক্ষেপ গ্রহণের জন্য সুপারিশমালা তৈরি ও উপস্থাপন করা; জেলা পর্যায়ে জাতীয় আইনগত সহায়তা প্রদান সংস্থার কার্যক্রমকে তরান্বিত করণ; তৃণমূল পর্যায়ের মানুষের অধিকার, মর্যাদা সুরক্ষায় সংশ্লিষ্ট বিভাগের কার্যকরী ব্যবস্থা গ্রহণের এডভোকেসী করা ইত্যাদি।

অনুষ্ঠানটিতে সভাপতিত্ব করেন সম্প্রীতি ফোরামের সভাপতি সিলভী হারুন। এছাড়া উপস্থিত ছিলেন জাতীয় মানবাধিকার কমিশনের সহকারী পরিচালক জেসমিন সুলতানা তানি, জেলা সমাজ সেবা কার্যালয়ের উপ-পরিচালক খান মোতাহার হোসেন, বিভাগীয় শ্রম মন্ত্রানালয়ের সহকারী পরিচালক শফিকুল ইসলাম, লবণচোরা থানার সাব ইন্সপেক্টর তপন কুমার, খুলনা জেলা আইনজীবী সমিতি এড. নজরুল ইসলামসহ ইউএনডিপি এর প্রতিনিধি ও দলিত সংস্থার প্রতিনিধিবৃন্দ।




আরও সংবাদ

খুলনা গেজেটের app পেতে ক্লিক করুন

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

© 2020 khulnagazette all rights reserved

Developed By: Khulna IT, 01711903692

Don`t copy text!